Press "Enter" to skip to content

‘রান্নায় ও গাড়িতে ব্যবহৃত গ্যাসের দাম বাড়বে’

রান্নার কাজে ও গাড়ির জন্য ব্যবহৃত গ্যাসের দাম বাড়বে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব নাজিমউদ্দিন চৌধুরী। তবে সার উৎপাদন ও বিদ্যুৎ প্রকল্প উৎপাদনের ক্ষেত্রে গ্যাসের দাম বাড়ানোর আপাতত কোনো চিন্তা নেই বলে জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত বাণিজ্য–সহায়ক পরামর্শক কমিটির সভায় সচিব বলেন, গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রক্রিয়া চলছে। গৃহস্থালি ও যানবাহনেই মোট গ্যাসের ২০ শতাংশ ব্যয় হয়ে যায়। অথচ এ থেকে সরকার পায় মাত্র ১ হাজার ৩০ কোটি টাকা। এই পরিমাণ গ্যাস শিল্প খাতে গেলে ৮০ হাজার কোটি টাকা পাওয়া যেত।

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের সভাপতিত্বে সভায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত প্রধান অতিথি ছিলেন।

২০১৫ সালের ১ সেপ্টেম্বর গৃহস্থালি কাজে এক বার্নারের গ্যাসের চুলা ব্যবহারের জন্য ৪০০ টাকা থেকে ৬০০ টাকা এবং দুই বার্নারের চুলা ব্যবহারের জন্য ৪৫০ থেকে বাড়িয়ে ৬৫০ টাকা হয়। একই সময় কমপ্রেসড ন্যাচারাল গ্যাস (সিএনজি) প্রতি ইউনিট ৩০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩৫ টাকা করা হয়।
 
সভায় আগামী ১ জুলাইয়ের আগেই মূল্য সংযোজন কর (মূসক) আইনের সাতটি বিষয়ে সংশোধনের দাবি জানান ব্যবসায়ীরা। এ সময় অর্থমন্ত্রী আশ্বাস দেন, শিগগিরই তিনি শুধু মূসক আইনের এই সাতটি বিষয় নিয়েই বৈঠক ডাকা হবে।

সভায় নাজিম উদ্দিন চৌধুরী জানান, সরকার রান্নার কাজে লাইন গ্যাসের পরিবর্তে তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম (এলপি) গ্যাস সিলিন্ডারের ওপর গুরুত্ব দিচ্ছে।

শেয়ার অপশন:
Don`t copy text!