রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। এসময় পুলিশের গুলিতে ৮জন আহত হয়েছেন। আটক করা হয়েছে তিনজনকে।
বুধবার সকাল ৯টার দিকে যাত্রাবাড়ী-ডেমরা সড়কে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকাল ৯টার দিকে জামায়াত-শিবির কর্মীরা একটি ঝটিকা মিছিল নিয়ে যাত্রাবাড়ী-ডেমরা সড়ক অতিক্রম করছিল। এসময় পুলিশ এসে মুহুর্মুহু গুলি ছুড়তে থাকে। এতে মিছিলকারীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়ে পালিয়ে যায়।
জামায়াত দাবি করে, ২৮ অক্টোবর পল্টন হত্যাকান্ডের বিচার দাবিতে তাদের পূর্বঘোষিত শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিলে গুলি করে পুলিশ। এতে কমপক্ষে আট নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। তবে আহতদের নাম প্রকাশে অপরাগতা প্রকাশ করে জামায়াত নেতারা। এছাড়া তিনজন কর্মীকে পুলিশ আটক করেছে বলে দাবি করে জামায়াত।
ওয়ারী জোন পুলিশের ডেপুটি কমিশনার (ডিসি) নূরুল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানান, জামায়াতের কর্মীরা মিছিল বের করার চেষ্টা করলে পুলিশ বাধা দেয়। এতে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়ে। এসময় ফাঁকা গুলি করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়া হয়।
যাত্রাবাড়ী থানার ডিউটি অফিসার  ৩ জনকে আটক করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন।
এদিকে পল্টন হত্যাকাণ্ডের বিচারের দাবিতে সকাল সাড়ে ৭টার দিকে রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোডে মিছিল করে জামায়াত-শিবির।
জামায়াতের কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরীর সহকারী সেক্রেটারি মো: সেলিম উদ্দিনের মিছিলে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জামায়াত নেতা অধ্যাপক আ জ ম কামাল উদ্দিন, শেখ নেওয়ামুল করিম, মিজানুর রহমান, জিল্লুর রহমান ও শিবির নেতা তারিক হাসান।

সর্বশেষ সংশোধিত: , মাধ্যম: