ব্রেকিং নিউজ

রাত ৪:২০ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ২০শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

রাজধানীতে একের পর এক অগ্নিসংযোগ

রাজধানীর কাকরাইলে পিকাআপ ভ্যানে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার সন্ধ্যা ৭ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। তবে এতে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সন্ধ্যা ৭ টার দিকে কাকরাইল একটি পিকআপ ভ্যানে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। এরপর স্থানীয়রা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে নেয়।

রাজধানীর মধ্য বাড্ডায় এলাকায় একটি লেগুনায় আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। শনিবার বিকেলে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কয়েকজন যুবক লেগুনাটিতে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এরপর তারা দ্রুত পালিয়ে যায়।

রাজধানীর মগবাজারে একটি প্রাইভেটকারে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে প্রাইভেটকারের চালক আবুল কালাম (২৬) গুরুতর আহত হয়েছেন। তার শরীরের ৩৩ শতাংশ পুড়ে গেছে। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।গাড়ি চালক আবুল কালাম বলেন, গাড়িতে বসে গান শুনছিলাম। এসময় অজ্ঞাত কেউ তিনটি পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করেন। এর মধ্যে একটি গাড়ির ভেতরে আসে। এতে গাড়িতে আগুন ধরে যায় ও আমি দগ্ধ হই। শুক্রবার ১১টার দিকে এ  ঘটনা ঘটে।

রাজধানীর মোহাম্মদপুরে বেড়িবাঁধ এলাকায় যাত্রীবাহী বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। এতে হাফেজ মিজানুর রহমান (৩০) ও আবদুল গফুর (৩২) নামে দুই যাত্রী দগ্ধ হন। কামরাঙ্গীর চরের পশ্চিম নবীনগরের আল হোসেনিয়া জামে মসজিদের খাদেম মিজানুর রহমান এবং গফুর একই মসজিদের মোয়াজ্জেন। মিজানুর ও গফুর জানান, মসজিদের ইমাম রুহুল আমিনকে গাবতলীতে বাসে তুলে দিয়ে তারা ফিরছিলেন। পথে মোহাম্মদপুর বেড়িবাঁধ কবরস্থান সংলগ্ন রাস্তায় চলন্ত গাড়িতে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। বাসে আরো ৬/৭ জন যাত্রী ছিল। এতে মিজানুর রহমানের দুই হাত ও দুই পা এবং গফুরের দুই পা ও এক হাত পুড়ে গেছে। শুক্রবার ১১টার দিকে এ  ঘটনা ঘটে।

অবরোধের পঞ্চম দিনে অবরোধকারীরা ফার্মগেটে একটি বাসে আগুন দিয়েছে। হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। শনিবার ভোরের দিকে এ ঘটনা ঘটে।

রাজধানীর তেজগাঁও মহিলা কলেজের সামনে শনিবার সকালে গাবতলীগামী একটি যাত্রীবাহী  বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে দগ্ধ হয়েছেন এক যাত্রী। তার নাম অমূল্য বর্মণ (৪৫)। তার বাবার নাম পশু বর্মণ, বাড়ি নারায়ণগঞ্জে। দগ্ধ অমূল্য বর্মণকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। ঢামেক হাসপাতাল সূত্র জানায়, ওই দগ্ধ যাত্রীর শরীরের ১২ শতাংশ পুড়ে  গেছে। দগ্ধ যাত্রীর সাথে অপর এক আরোহী অনিল চন্দ্র জানান, বাড়ি যাওয়ার উদ্দেশে তারা উভয়ে গাবতলীগামী ৮ নম্বর বাসে উঠে। বাসটি তেজগাঁও মহিলা কলেজের সামনে আসলে দুর্বৃত্তরা পেট্রোল দিয়ে বাসটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়।

রাজধানীর মিরপুর, মতিঝিলবিজয়নগরে পৃথক তিনটি বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। তবে এতে হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থানাধীন রায়েরবাগ এলাকার গোধূলি পরিবহন নামে একটি যাত্রীবাহী বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার সন্ধ্যা পৌনে ৮ টার দিকে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। শুক্রবার রাত ১১টা থেকে সাড়ে ১২ টার মধ্যে এসব জায়গায় বাসে আগুন দেওয়া হয়।

রাজধানীর শাহবাগে একটি যাত্রীবাহী বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার সন্ধ্যা পৌনে ৬ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুর্বৃত্তরা বেলাল এন্টারপ্রাইজের একটি বাসে আগুন দিয়ে নিজেরাই ‘আগুন আগুন’ বলে চিৎকার করে বাস থেকে নেমে যায়।

রাজধানীর মালিবাগ চৌধুরীপাড়া ও খিলগাঁওয়ে দুইটি যাত্রীবাহী বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। তবে এতে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। শনিবার সন্ধ্যার পর খিলগাঁও ও মালিবাগের চৌধুরীপাড়া এলাকায় দুইটি বাসে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। রাজধানীর খিলগাঁও মাটির মসজিদ সংলগ্ন রাস্তায় দাঁড়ানো তরঙ্গ পরিবহনের একটি বাসে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। মালিবাগ চৌধুরীপাড়ায় আরেকটি যাত্রীবাহী বাসে অগ্নিসংযোগ করে অবরোধকারীরা।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার গুলশান রাজনৈতিক কার্যালয়ের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা একটি প্রাইভেটকারে (ঢাকা মেট্রো-১১৯৪৭৯) আগুন দেয়া হয়েছে। শনিবার রাত নয়টার দিকে প্রাইভেটকারটিতে আগুন দেয়া হয়। প্রাইভেটকারটি বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সাবিহ উদ্দিন আহমেদের বলে জানা গেছে। সাবিউদ্দিন আহমেদ অবরুদ্ধ বিএনপি নেত্রীর সঙ্গে দেখা করতে এসেছেন। তিনি কার্যালয়ের ভেতরে ছিলেন। ড্রাইভার কার্যালয়ে দায়িত পালনরত পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে কথা বলছিলেন। এসময় গাড়িটিতে আগুন দেয়া হয়।