ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৩:৫৭ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলী

যুদ্বাপরাধী মীর কাশেমের ‘পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ’ যে কোনো দিন

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে দেয়া রায়ের বিরুদ্ধে জামায়াত নেতা মীর কাশেম আলীর মৃত্যুদণ্ড বহালের পূর্ণাঙ্গ রায় যে কোনো দিন প্রকাশ করা হতে পারে। এছাড়া আপিল বিভাগে আরো ১২ আসামির মামলা শুনানির অপেক্ষায় রয়েছে বলে আদালত সূত্র জানায়।

জামায়াতের নির্বাহী পরিষদ সদস্য মীর কাশেম আলীর মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখে আপিল মামলায় গত ৮ মার্চ সংক্ষিপ্ত রায় ঘোষণা করা হয়। প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগ বেঞ্চ জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় দেয়। এটি আপিলে সপ্তম মামলা, যার আপিলে রায় হলো।

আপিলে শুনানির অপেক্ষায় থাকা মামলার আসামিরা হলেন- জামায়াতের অন্যতম শীর্ষ নেতা আব্দুস সুবহান ও এটিএম আজহারুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ থেকে বহিস্কৃত মোবারক হোসেন, জাতীয় পার্টির নেতা সাবেক প্রতিমন্ত্রী সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সার ও সাবেক এমপি পলাতক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল জব্বার, চাঁপাইনবাবগঞ্জের মাহিদুর রহমান ও আফসার হোসেন চুটু, বাগেরহাটের শেখ সিরাজুল হক ওরফে সিরাজ মাস্টার ও খান আকরাম হোসেন, পটুয়াখালীর ফোরকান মল্লিক, নেত্রকোনার আতাউর রহমান ননী ও ওবায়দুল হক তাহের।

পর্যায়ক্রমে এসব আপিল শুনানি ও নিষ্পত্তি হতে পারে বলে জানিয়েছে অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয় সূত্র।

এদিকে আপিলের আরেক রায়ে জামায়াতের নায়েবে আমীর দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর সাজা কমিয়ে আমৃত্যু কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। এ রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি গতবছর ৩১ ডিসেম্বর প্রকাশিত হয়। রায় রিভিউ চেয়ে রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষ ইতোমধ্যে আবেদন দাখিল করেছে। এ রিভিউ আবেদনও শুনানির অপেক্ষায় রয়েছে। মীর কাশেমের আপিলের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করা হলে এ রায় রিভিউ চেয়ে আবেদন করার জন্য ১৫ দিন সময় পাবেন তিনি।

মুক্তিযুদ্ধকালীন মানবতাবিরোধী অপরাধ বিচারে গঠিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে বিচারিক কার্যক্রম শেষে এ পর্যন্ত ২৩ মামলায় রায় ঘোষণা করেছে। ২৪ তম রায় ঘোষণার অপেক্ষায় রায়েছে। রায় হওয়ায় মামলার বেশ কয়েকজন আসামি পলাতক রয়েছেন। এতে তারা ইতোমধ্যে আপিলের সুযোগ হারিয়েছেন।
-বাসস