Press "Enter" to skip to content

যুক্তরাষ্ট্র কোন অভিবাসী শিবির নয়: ট্রাম্প

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তাঁর প্রশাসনের তরফে শিশু সন্তানদের বলপূর্বক বিচ্ছিন্ন করার নীতির পক্ষাবলম্বনে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র কোন অভিবাসী শিবির নয়, শরনার্থীদের কোন আটক শিবির নয় এটা।

গতকাল সোমবার প্রকাশিত একটি অডিও রেকর্ডিংয়ে দেখা গিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র অভিবাসন কর্তৃপক্ষের তরফে মাতা-পিতার সান্নিধ্য থেকে বিচ্ছিন্ন নাবালক শিশু সন্তানরা আকুল হয়ে কাঁদছে আর মা-বাবার কাছে যাবার জন্যে আহাজারি করছে। যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চলবর্তী সীমান্তে মা-বাবার সান্নিধ্য থেকে বিচ্ছিন্ন এসব শিশু সন্তানের বিষয়টি নিয়ে ট্রাম্প প্রশাসন গৃহিত শুন্য সহনশীলতা বা জিরো টলারেন্সকে ঘিরে নতুন করে ক্ষোভ সঞ্চারিত হচ্ছে এখন।

ভয়েস অব আমারিকার প্রতিবেদনে বলা হয়, নিরপেক্ষ-স্বতন্ত্র একটি সন্ধহনী সংবাদ সূত্র প্রো-পাবলিকা প্রায় আট মিনিটের এই রেকর্ডিং প্রকাশ করেছে। প্রোপাবলিকা বলছে, পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি, এমনি এক সূত্র এই রেকর্ডিং হস্তান্তর করে নাগরিক অধিকার নিয়ে কাজ করেন এমনি এক আইনজীবী – কৌঁশলীর কাছে এবং তিনি ওটা উপস্থাপন করেন ওয়েবসাইটে।

ঐ রেকর্ডিংয়ের যে বিশেষ একটি অংশ বেশী হৃদয় বিদারক হয়ে কানে বিঁধেছে, সেটিতে এল স্যালভাদরের ৬ বছর বয়সী একটি শিশু কন্যার কান্নার আহাজারিতে তাকে স্প্যানিশ ভাষায় বলতে শোনা গিয়েছে, “ওগো আমায় আমার আন্টির কাছে, আমার ফুফু বা মাসির কাছে যেতে দাও”।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তাঁর প্রশাসনের তরফে শিশু সন্তানদের এই বলপূর্বক বিচ্ছিন্ন করার নীতির পক্ষাবলম্বনে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র কোন অভিবাসী শিবির নয়, শরনার্থীদের কোন আটক শিবির নয় এটা।

সরকারী সূত্রে জানা গিয়েছে, এপ্রিল/মে মধ্যবর্তী সময়ে প্রায় হাজার দুই শিশু সন্তানকে অন্তরীন শিবিরে বা শিশু সদনের তত্ত্বাবধানে পাঠানো হয়েছে।

হোয়াইট হাউসের প্রেস সচিব সেরা হাকাবী স্যান্ডার্স স্বরাষ্ট্র দফতর হোমল্যান্ড সিকিউরিটির মন্ত্রী ক্রিসটিয়েন নিয়েলসানকে সংবাদ কর্মীরদের সামনে উপস্থিত করেন এবং তিনি প্রশাসনের জিরো টলারেন্স বা কোন ক্রমেই গ্রহনযোগ্য নয় নীতির পক্ষাবলম্বনে জানান, যুক্তরাষ্ট্র যাই করছে, তা যথাযথভাবে আইন বলবতের লক্ষ্যেই করা হচ্ছে। সংবাদ মাধ্যমের নেতিবাচক উপস্থাপনের কড়া বিরোধীতা করেন তিনি।

ওদিকে, ‌ইউরোপের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ক্ষমতারোহনের পর থেকে নিয়ে এ অবধি- জলবায়ূর পরিবর্তন, শুল্ক ইত্যাদি থেকে নিয়ে অভিবাসন পর্যন্ত বিবিধ বিষয়েই মতপার্থক্য দেখা গিয়েছে। ট্রাম্প প্রশাসনের এই শিশু সন্তানদের তাদের মা-বাবার কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন করা নিয়ে ইউরোপে ক্রমশই ক্ষোভ সঞ্চারিত হচ্ছে। ওখানে, গত পাঁচ বছরে যে শরনার্থী-অভিবাসী হাজির হয়েছে, তার এক তৃতীয়াংশই শিশু বয়সী।

তবে সেই সঙ্গে এটাও ঠিক যে জাতীয়তাবাদী লোকরঞ্জন রাজনীতিকদের কেউ কেউ ট্রাম্প নীতির প্রতি সমর্থনও ব্যক্ত করছেন।

Mission News Theme by Compete Themes.