ব্রেকিং নিউজ

রাত ৩:১১ ঢাকা, বুধবার  ১৯শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

মেয়র কারাগারে, সংঘর্ষ, ভাঙচুর, ওসিসহ আহত ১৫

সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়া হত্যা মামলায় হবিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জি কে গউছের আত্মসমর্পণকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। এতে ওসি ও ৭ পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন। গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৮ জনকে।
আজ বেলা পৌনে ১২টায় সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রোকেয়া খাতুনের আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে ৫৫ মিনিট বাদি বিবাদীর পক্ষের আইনজীবীদের বক্তব্য শুনানির পর  বিচারক আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।
সকাল সাড়ে ৭টায় জিকে গউছ আত্মসমর্পণের জন্য আদালতে অবস্থান নেন। সকাল পৌনে ১২টায় আদালতের কাঠগড়ায় তাকে নেয়া হয়। এ সময় আদালত পাড়ায় দলীয় নেতাকর্মী ও উৎসুখ জনতা উপস্থিত ছিলেন। এ জন্য নেয়া ব্যাপক নিরাপত্তা। এ মিছিল থেকে শহরের সার্কিট হাউজ রোড এলাকার গণপূর্ত ভবন, জেলা পরিষদ রেস্ট হাউজ, আটটি ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা (টমটম) এবং একটি মাইক্রোবাস ও একটি প্রাইভেট কার ভাঙচুর করে।
এ সময় পুলিশ তাদের বাধা দিলে শুরু হয় সংঘর্ষ। সংঘর্ষে হবিগঞ্জ সদর থানার ওসি নাজিম উদ্দিনসহ ৩০ জন আহত হন। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সহিদুল ইসলাম জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে দেড় শ রাউন্ড রাবার বুলেট, ১৪ রাউন্ড টিয়ার শেল নিক্ষেপ করা হয়। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।