ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৭:৫৫ ঢাকা, রবিবার  ২১শে অক্টোবর ২০১৮ ইং

মোহাম্মদ নাসিম
আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, ফাইল ফটো

মেডিকেল প্রশ্ন ফাঁস: কিছু সম্মানিত ব্যক্তিরা কিছু না জেনে হাওয়ার উপর বক্তব্য দিচ্ছেন

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, কিছু সম্মানিত ব্যক্তিরা কিছু না জেনে হাওয়ার উপর বক্তব্য দিচ্ছেন। তিনি আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ঘরে ফেরার আহবান জানিয়ে বলেন, মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা অত্যন্ত সতর্কতার সাথে অনুষ্ঠিত হয়েছে। কাজেই প্রশ্নফাঁসের যে অভিযোগ উঠেছে, তা সত্যি নয়।
তিনি বলেন, মেডিকেল প্রশ্ন ফাঁস নিয়ে যে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে তা সঠিক নয়। অনেকে না বুঝে আন্দোলন করছে। মেডিকেল কলেজের ভর্তি পরীক্ষা প্রতিবারই নিশিচ্ছদ্র নিরাপত্তায় অনুষ্ঠিত হয়। এবারও তাই হয়েছে।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী আজ রোববার দুপুরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মত বিনিময়কালে এ আহবান জানান।
মেডিকেলের প্রশ্নফাঁসের ব্যাপারে ওঠা অভিযোগকে ‘গুজব’ বলে অভিহিত করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, মেডিকেল কলেজের ভর্তি পরীক্ষা প্রতিবারই নিচ্ছিদ্রনিরাপত্তায় অনুষ্ঠিত হয়। এবারও তাই হয়েছে। পরীক্ষায় যেখানে প্রশ্ন ছাপা হয়েছে, সেখানে আমি নিজেই গিয়েছি। ফাঁসের কোনো সুযোগই নেই সেখানে। এটা একটা গুজব।
তিনি বলেন, এ ব্যাপারে আমি নিজে অনুসন্ধান করেছি। হাইকোর্টে যে অভিযোগ করা হয়েছিল, সেটিও খারিজ হয়ে গেছে। কিছু সম্মানিত ব্যক্তিরা আমাদের জিজ্ঞাসা করতে পারতেন এ বিষয়ে। কিন্তু তারা তা না করে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সমাবেশে গিয়ে বক্তব্য দিচ্ছেন।
মোহাম্মদ নাসিম বলেন, তারা কোন কিছু না জেনে হাওয়ার উপর বক্তব্য দিচ্ছেন। তারা আসলে সত্যতা যাচাই না করে কথা বলছেন। এটা অত্যান্ত দুঃখ জনক।
আইন করে মেডিকেল ভর্তি কোচিং বন্ধ করে দেয়া হবে বলে জানিয়ে তিনি বলেন, মেডিকেল কলেজে ভর্তির জন্য যদি আলাদা কোনো কোচিং থাকে, সেটি আইন করে বন্ধ করে দেয়া হবে।
এ সময় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, প্রধানমন্ত্রী তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, স্বাস্থ্যসচিব সৈয়দ মনজরুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. দীন মো. নুরুল হক, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার ব্যবস্থপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, দৈনিক যুগান্তরের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমান, প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক আব্দুল কাইয়ুম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।