Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সকাল ১০:১৬ ঢাকা, বুধবার  ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করে জিয়া

শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, জিয়াউর রহমান মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করে ক্ষমতায় এসেছিল। বিভেদ সৃষ্টির কারণ ছিল, রাজাকারদের সঙ্গে আঁতাত করে ক্ষমতায় যাওয়া।
তিনি বলেন, আওয়ামীলীগ যখনই সরকারে এসেছে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রাপ্য সম্মান দিয়েছে। যা অন্য কোন সরকার দেয়নি। ৯৬ সালে আওয়ামীলীগ সরকার গঠনের পর মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা দেয়া শুরু হয়। এখন একজন মুক্তিযোদ্ধা ৫ হাজার টাকা করে ভাতা পাচ্ছেন। এটি ১০ হাজার টাকায় উন্নীত করার প্রক্রিয়া চলছে।
বন্দরের শান্তিনগরে তিন নদীর মোহনায় নীট পল্লী গড়ে তোলার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আলোচনা করে বাস্তবমুখী পদক্ষেপ নেয়ারও ঘোষণা দেন তিনি।
শিল্পমন্ত্রী আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদ মিলনায়তনে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেওয়া জেলার ৫০ জন মুক্তিযোদ্ধাকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
জেলা পরিষদের প্রশাসক আবদুল হাইয়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি সেলিম ওসমান, ২ আসনের এমপি নজরুল ইসলাম বাবু, সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি অ্যাডভোকেট হোসনে আরা বাবলী, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মোহাম্মদ আলী প্রমুখ। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে জেলার ৫০ জন মুক্তিযোদ্ধাকে ৫ হাজার টাকার চেক এবং একটি করে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।
শিল্পমন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেন, আওয়ামীলীগ ৯৬-২০০১ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকাকালীন ১৩ লাখ টন খাদ্য মজুদ রেখে গিয়েছিল। ২০০১ সালে বিএনপি ক্ষতায় এসে দেশে খাদ্য ঘাটতি তৈরী করে। ওই সময় বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার সংখ্যা লঘুসহ দেশের ৩৩ হাজার মানুষকে হত্যা করেছে। আওয়ামীলীগ এবার ক্ষমতায় আসার পর দেশ আবারো খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে।
তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ উন্নয়নের লক্ষ্যে ভিশন টুয়েন্টি ২১ এবং ভিশন ৪১ কে সামনে রেখে কাজ করে যাচ্ছে।
নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি সেলিম ওসমান সংবর্ধিত ৫০ জন মুক্তিযোদ্ধার প্রত্যেকের পরিবার থেকে একজন করে সদস্যকে বিনামূল্যে ৩ মাস প্রশিক্ষনের মাধ্যমে দক্ষ করে গড়ে তুলে তাদের নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন গার্মেন্টে চাকুরি দেবার আশ্বাস দেন।