ব্রেকিং নিউজ

রাত ১০:৫০ ঢাকা, সোমবার  ২৪শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

“মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ভুলে গেলে বিপদ”

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম এমপি বলেছেন, আমরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ভুলে গেলে স্বাধীন দেশ হিসেবে বাংলাদেশ ভবিষ্যতে টিকে থাকতে পারবে না।
তিনি বলেন, ‘যে বিশ্বাসে আমরা বিশ্বাসী সে বিশ্বাসকে আরো মজবুত করতে হবে। তা না হলে যারা মহান মুক্তিযুদ্ধকে বিশ্বাস করে না তারা একদিন বলবে দেশে কোন স্বাধীনতার যুদ্ধই হয়নি।’
আশরাফ আরো বলেন, দেশে এখনও এমন একটি শ্রেণীর মানুষ রয়েছে যারা ১৯৭১ সালকে মুক্তিযুদ্ধের বছর না বলে গন্ডোগোলের বছর হিসেবে অভিহিত করে থাকে।
সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম এমপি আজ বিকেলে রাজধানীর রমনাস্থ ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের উদ্যোগে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
ছাত্রলীগের সভাপতি মো. সাইফুর রহমান সোহাগের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. হারুন-অর-রশিদ ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ডা. নুজহাত চৌধুরী।
সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসান, সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্স, ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ মিজানুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মো. মহিউদ্দীন ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহমেদ।
সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেন, ‘ স্বাধীনতার চেতনা আমরা যেন ভুলে না যাই। তাহলে আমাদের ক্ষয় হবে।’
তিনি বলেন, ‘ আমাদেরকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং যারা তার সাথে জীবন উৎসর্গ করেছেন তাদের স্মৃতিকে অম্লান করে রাখতে হবে।’
ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে আশরাফ বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে ছাত্রলীগ যে অবদান রেখেছে তা অতুলনীয়। আর অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার মতো শক্তি ও সামর্থ যেমন আপনাদের রয়েছে তেমনি এ ক্ষেত্রে আপরাদেরই নেতৃত্ব দিতে হবে।
তিনি বলেন, ‘ আপনারই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ নেতৃত্ব এবং আপনারই এ দেশের সরকার পরিচালনা করবেন। সেজন্য আপনাদের ভালভাবে গড়ে উঠতে হবে।’
বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী ভাল ভাবে পাঠ করার আহবান জানিয়ে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে অধ্যাপক হারুন অর রশিদ বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের অনুসারী কেউ হলে সে কখনো অন্যায় করতে পারে না। তারা অন্যায়ের প্রতিবাদ করে।
এ বিষয়ে তিনি আরো বলেন, যারা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের অনুসারী তারা দেশের মানুষের সেবায় নিজের জীবনকে উৎসর্গ করে।