ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১২:৩৭ ঢাকা, বুধবার  ১৯শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

মার্কিন সামরিক বাহিনীর টুইটার ও ইউটিউব হ্যাক

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় সামরিক কমান্ড বা সেন্টকমের টুইটার ও ইউটিউব অ্যাকাউন্ট হ্যাক করার কারণে কয়েক ঘন্টা বন্ধ ছিল। আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস) সেন্টকমের অ্যাকাউন্ট হ্যাক করার দাবি করেছে।
সেন্টকমের টুইটার অ্যাকাউন্টে ঢুকে হ্যাকাররা এক বার্তায় লিখেছে ‘মার্কিন সেনারা, আমরা আসছি, পিছনে তাকিয়ে দেখ।’ বিবৃতিটি আইএসআইএসের পক্ষে স্বাক্ষরিত ছিল। আইএসআইএসের অপর নাম আইএস। সেন্টকমের টুইটারে কিছু অভ্যন্তরীণ সামরিক নথিপত্রও প্রকাশ করা হয়।
এছাড়া টুইটার অ্যাকাউন্টের কভার ছবি ও প্রোফাইল ছবি বদলে দেয়া হয়। কালো রঙের ছবিতে একটি মুখ দেখা যায়। এর পর লেখা রয়েছে ‘সাইবার খলিফা, আইএসআইএস’ আর জঙ্গিদের সমর্থনে লেখা রয়েছে, ‘আমি তোমাকে ভালবাসি, আইএসআইএস’।
সেন্টকম জানায়, এটা সাইবার হামলা। তবে তারা গুরুতর তথ্য-উপাত্ত চুরি করতে পারেনি। এতে তেমন প্রভাব পড়েনি এবং কোন গোপনীয় তথ্য তারা প্রকাশ করতে পারেনি।
সেন্টকমের বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আমার এ ঘটনাকে পুরোপুরি সাইবার হামলা হিসেবে দেখছি।’ পরে সোমবার বিকেলের দিকে সেন্টকমের টুইটার পুনরায় দেখা যায়। তবে তা সক্রিয় ছিল না।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা সাইবার নিরাপত্তা নিয়ে যখন বক্তৃতা দিচ্ছিলেন ঠিক সে মুহূর্তে সেন্টকমের টুইটার ও ইউটিউব হ্যাক করা হয় যা দেশটির জন্য খুবই বিব্রতকর। ওবামা তার ভাষনে সনি পিকচার্সে সম্প্রতি সাইবার হামলার মত ঘটনার প্রতি গুরুত্বারোপ করেন।
ওবামার মুখপাত্র জোসে আর্নেস্ট বলেন, সেন্টকমে হ্যাকিংয়ের বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্র খতিয়ে দেখছে।
পেন্টাগনের একজন কর্মকর্তা রয়টার্সকে বলেন, যদিও বিষয়টি বিব্রতকর তবে তাতে নিরাপত্তার জন্য আশঙ্কার কিছু নেই।
হ্যাকাররা বেশ কয়েকজন সেনা কর্মকর্তার নাম, তাদের ফোন নম্বর এবং যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর ভেতরকার কিছু তথ্যও প্রকাশ করে।
বিবিসির প্রতিরক্ষা বিষয়ক সাংবাদিক জোনাথন মারকুস জানিয়েছেন, হ্যাক হওয়া অ্যাকাউন্টগুলোতে প্রকাশিত তথ্য, আলোকচিত্র আর গ্রাফ দেখে একে অপেশাদার কর্ম বলেই মনে হচ্ছে। কারণ, যেসব তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে সেগুলোর অধিকাংশই গোপনীয় কোন বিষয় নয়। পাশাপাশি এখানে অনেককিছুই পোস্ট করা হয়েছে যেগুলো আগেই ইন্টারনেটে ছিল।
সারে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক অ্যালান উডওয়ার্ড বলেন, তিনি সাইবার হামলাকে নিরাপত্তার জন্য গুরুতর হুমকি বলে মনে করছেন না।