ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১:১১ ঢাকা, বুধবার  ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

রুহুল কবির রিজভী
রুহুল কবির রিজভী, ফাইল ফটো

‘মসনদকে কন্টকমুক্ত রাখতেই দেশব্যাপী হত্যা’পাল্টা অভিযোগ বিএনপির

প্রধানমন্ত্রী বিরোধী দলকে দমনে রক্তাক্ত পন্থা অবলম্বন করে নিজের মসনদকে কন্টকমুক্ত রাখতে গিয়েই দেশব্যাপী হত্যা আর লাশের উৎসব চলছে বলে মন্তব্য করেছেন, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।  

আজ দুপুরে এক প্রেস ব্রিফিং এ সরকারের প্রতি পাল্টা অভিযোগে এ সব কথা বলেন তিনি।
 
রিজভী বলেন, দেশের সার্বিক পরিস্থিতিতে মনে হয়-চরম অরাজকতার ঘণ অন্ধকারের মধ্যে দেশ। গতকাল নিহত জুলহাস মান্নান ও মাহবুব রাব্বী তনয় এর হত্যাকান্ডের পর প্রধানমন্ত্রী একটি সভায় বলেছেন-এগুলোর সাথে বিএনপি-জামায়াত জড়িত। আইনী প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার আগেই প্রধানমন্ত্রী চটজলদি কি করে বললেন যে, হত্যাকান্ডের সাথে বিরোধী দল জড়িত। এর আগেও বিভিন্ন হত্যাকান্ড সংঘটিত হওয়ার পরপরই বিভিন্নভাবে চেষ্টা করা হয়েছে বিএনপি’র লোকদের জড়িত করার। এর অর্থ দাঁড়ায়-দেশে তাদের নিজেদের সীমাহীন ব্যর্থতা ঢাকতেই জনদৃষ্টিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্যই তারা মানুষের প্রাণ কেড়ে নেয়ার মতো কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। কারণ সন্ত্রাসনির্ভর এই সরকার সন্ত্রাসবাদের অন্ধগলিতে পথ হারিয়ে ফেলার কারনেই এখন উন্মাদের মতো কথা বলছে। প্রধানমন্ত্রী বিরোধী দলকে দমনে রক্তাক্ত পন্থা অবলম্বন করে নিজের মসনদকে কন্টকমুক্ত রাখতে গিয়েই দেশব্যাপী হত্যা আর লাশের উৎসব চলছে। সরকার দলীয় ক্যাডার’রা উস্কানি পেয়ে ভয়াবহ বেপরোয়া হয়ে ওঠার কারনে জনগণের জানমালের নিরাপত্তা এখন চরম হুমকির মুখে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলো দলীয় ক্যাডার দিয়ে সাজানোর কারনেই সবুজ শ্যামল বাংলাদেশ রক্তঝরা রক্তিম রঙে ঢেকে গেছে।
 
রিজভী বলেন, হত্যাকে উৎসাহিত করাই আওয়ামী লীগের সংস্কৃতি, বিএনপি’র নয়। যে প্রধানমন্ত্রী একটির বদলে দশটি লাশ ফেলার নির্দেশ দিয়েছিলেন, তার ক্যাডাররা সেটি করতে পারছে না বলে বিদ্রুপ করে বলেছিলেন শাড়ী পড়তে। সুতরাং হিংসাত্মক আক্রমণ, লুটপাট, ভাংচুর, খুন, জখম, গুম, অপহরণ ইত্যাদি অনাচার আওয়ামী লীগের জন্মগত বৈশিষ্ট্য। ইতোমধ্যে যতগুলি হত্যাকান্ড সংঘটিত হয়েছে তার কোনটিরই সুরাহা করতে পারেনি এই ভোটারবিহীন সরকার। শুধুমাত্র মদগর্বী আস্ফালন, হুমকি আর নিজেদের অপকীর্তি অন্যের ঘাড়ে চাপিয়ে দেয়া হয়েছে। এসব করেও সরকারের কোন লাভ হবে না। সরকারের পা এখন চোরাবালির ওপরে, ক্রমাগতভাবে অতলে তলিয়ে যাচ্ছে।

রিজভী বলেন, গতকাল রাজধানীর কলাবাগানে বাসায় ঢুকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সাবেক প্রটোকল কর্মকর্তা ও তার বন্ধুকে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। কুরিয়ার সার্ভিস কর্মী পরিচয়ে পার্সেল দেয়ার কথা বলে বাসায় ঢুকে খুনিরা। মুহূর্তেই বাসার দারোয়ান ও তাদের কুপিয়ে ফাঁকা গুলি করতে করতে বের হয়ে যায়। নিহতরা হলেন জুলহাস মান্নান (৪০) ও মাহবুব রাব্বী তনয় (৩৮)। মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সাবেক প্রটোকল কর্মকর্তা জুলহাস ইউএস এইডে কর্মরত ছিলেন। ত্রৈমাসিক পত্রিকা ‘রূপবান’ সম্পাদনা ও প্রকাশনার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তিনি। এর ৭২ ঘন্টা আগে নিজ বাসার সামনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. এ এফ এম রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে কুপিয়ে হত্যা করে দুস্কৃতিকারীরা।
এর আগে গতকাল সকালে গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে সন্ত্রাসীদের গুলিতে সাবেক সর্বপ্রধান কারারক্ষী রুস্তম আলী (৬০) নিহত হয়েছেন। সোমবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে মোটরসাইকেলে করে সন্ত্রাসীরা এ হামলা চালায়। আমি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি’র পক্ষ থেকে সকল হত্যাকান্ডের তীব্র ধিক্কার, নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে অপরাধীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি জানাচ্ছি।