ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৮:৪৫ ঢাকা, বুধবার  ১৯শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

'লংমার্চ বাতিল'
বিক্ষোভ মিছিল ও সড়ক অবরোধের ফাইল ফটো

মন্দিরে হামলার ঘটনায় ‘লংমার্চ অভ্যন্তরীণ বিরোধে বাতিল’

মন্দিরে হামলার ঘটনার প্রতিবাদে ছয় দফা দাবিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরমুখী লংমার্চ পুলিশের বাধা আর আয়োজকদের অভ্যন্তরীণ বিরোধের কারণে বাতিল হয়ে গেছে।

মাইনরিটি রাইটস মুভমেন্টের ব্যানারে শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি থেকে এই লংমার্চ শুরু হলেও কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকায় পুলিশের বাধা দেয়। পরে এক পর্যায়ে নিজেদের মধ্যে বিরোধের পর অংশগ্রহণকারীরা ১১টা ৪০ মিনিটে আবার টিএসসিতে ফিরে আসেন।

টিএসসির রাজু ভাস্কর্য চত্বরে কর্মসূচির সমাপ্তি ঘোষণা করে মাইনরিটি রাইটস মুভমেন্টের সমন্বয়ক মানিক রক্ষিত গণমাধ্যমকে বলেন, নিরাপত্তা দিতে পারবে না- এমন কথা বলে পুলিশ আমাদেরকে লংমার্চে যেতে দেয়নি।

মাইনরিটি রাইটস মুভমেন্টের সমন্বয়ক মানিক রক্ষিত জানান, মোট পাঁচটি বাস যাওয়ার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত একটি বাস ও তিনটি মাইক্রোবাস নিয়ে তারা যাত্রা শুরু করেছিলেন। ছয় দফা দাবির পাশাপাশি ক্ষত্রিগ্রস্তদের জন্য প্রায় দুই লাখ টাকার সহায়তা নিয়ে তারা যাচ্ছিলেন।

মানিক রক্ষিত বলেন, আমরা নিজেদের নিরাপত্তার দায়িত্ব নিজেরা নিয়ে যেতে চেয়েছিলাম, তাও যেতে দেয়নি। এখন অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে কর্মসূচি সমাপ্ত ঘোষণা করছি।

অভ্যন্তরীণ বিরোধ সম্পর্কে মানিক রক্ষিত বলেন, আমাদের বিরোধটা লংমার্চে সবাই যাবে, নাকি একটা অংশ যাবে- তা নিয়ে। পুলিশের বাধার কারণে সেই পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যাওয়া আমাদের সংগঠনের কর্মীদেরও বাধা দিয়েছে।

তবে শাহবাগ থানার ওসি আবু বকর গণমাধ্যমকে বলেন, মাইনরিটি রাইটস মুভমেন্টের ব‌্যানারে শিক্ষার্থীরা ত্রাণ সহায়তা নিয়ে নাসিরনগরে যাওয়ার কথা বলেছিল। এ কারণে তিনি ‘নিজে’তিনটি মাইক্রোবাস ঠিক করে দিয়েছিলেন। আন্দোলনকারীরা পরে তার সঙ্গে একটি বাস যোগ করে, যার অনুমতি ছিল না।
শাহবাগ থানার ওসি বলেন, নাসিরনগরে ত্রাণ দেওয়ার জন্য তারা যেতে পারে, কিন্তু সেখানে গিয়ে সমাবেশ করার মতো পরিস্থিতি নেই। এতো লোকজন নিয়ে সমাবেশ করতে গেলে সেখানে দুই পক্ষের মধ্যে ঝামেলারও আশংকা আছে।