Press "Enter" to skip to content

মনোবল শক্ত আছে কারাবন্দি খালেদা জিয়ার : ফখরুল

শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকলেও কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মনোবল অত্যন্ত শক্ত আছে বলে জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার বিকালে খালেদা জিয়ার সাথে কারাগারে এক ঘণ্টা সাক্ষাৎ শেষে কারাফটকের সামনে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ম্যাডাম শারীরিক দিক দিয়ে অসুস্থ আছেন। বেশ অসুস্থ। আমি আগে তাকে দেখেছি, তার চাইতে অবস্থা এখন ভালো নয়। আমার কাছে মনে হয়েছে তিনি ব্যথায় খুব কষ্ট পাচ্ছেন। তবে ম্যাডামের মনোবল অত্যন্ত শক্ত আছে। উনি দেশবাসীকে মনোবল দৃঢ় রাখতে বলেছেন।

জনগণের উদ্দেশে খালেদা জিয়ার কোনো বার্তা আছে কিনা- এমন প্রশ্নে বিএনপি মহাসচিব বলেন, দেশবাসীর উদ্দেশে ম্যাডাম বলেছেন- তারা যেন সজাগ থাকে, সচেতন থাকে। গণতন্ত্রের জন্য যে সংগ্রাম চলছে সেই সংগ্রাম যেন অব্যাহত রাখে তারা।

কারা কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে বিকাল ৪টার দিকে কারাগারে প্রবেশ করে বিকাল ৫টার দিকে বেরিয়ে আসেন মির্জা ফখরুল ইসলাম।

দুপুরের দিকে কারা কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে চেয়ারপারসনের একান্ত সচিব আবদুস সাত্তারের মাধ্যমে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সাক্ষাতের বিষয়টি জানানো হয়।

এরপর মহাসচিব বিষয়টি নিয়ে লন্ডনে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও স্থায়ী কমিটির সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করেন। এরপর ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের নির্দেশ ও স্থায়ী কমিটির সদস্যদের পরামর্শক্রমের একাই সাক্ষাতের জন্য কারাগারে যান ফখরুল।

জানা গেছে, প্রথমে তাকে কারাগারের ভেতরে অতিথিকক্ষে নিয়ে বসানো হয়। মির্জা ফখরুলের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, দীর্ঘদিন পর প্রথম সাক্ষাতে অসুস্থ দলের চেয়ারপারসনকে দেখে আবেগপ্রবণ অবস্থায় সালাম ও কুশল বিনিময় করেন বিএনপি মহাসচিব।

ফখরুল বলেন, আমি ম্যাডামকে এভাবে দেখব চিন্তাই করতে পারিনি। এটা আমার জন্য বেদনার। ঈদের দিন বাসার খাবারের প্রতীক্ষায় তিনি দীর্ঘ সময় কোনো খাবার খাননি। পরে আইজি প্রিজনের অনুরোধে সন্ধ্যায় খাবার খেয়েছেন।

সাংগঠনিক বিষয়ে কোনো আলোচনা হয়েছে কিনা সাংবাদিকদের এ প্রশ্নে মির্জা ফখরুল বলেন, সাংগঠনিক বা রাজনৈতিক বিষয়ে কোনো আলোচনা হয়নি। তিনি সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন। তিনি আপনাদের (গণমাধ্যম) মাধ্যমে দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।

বিএনপি মহাসচিব জানান, দলের চেয়ারপারসনের সাক্ষাতের বিষয়টি স্থায়ী কমিটির সদস্যদের অবহিত করতে রাতে গুলশানের কার্যালয়ের নেতাদের বৈঠক রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বিশেষ আদালত। এরপর থেকে পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন তিনি।

Mission News Theme by Compete Themes.