ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৪:৪৭ ঢাকা, বুধবার  ২৩শে মে ২০১৮ ইং

‘মদ-ইয়াবা’সহ রাজীব গ্রেফতার, প্রতিবাদে ছাত্রদলের বিক্ষোভ

ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি রাজীব আহসানকে গ্রেফতারের পরে তার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পটুয়াখালীতে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। প্রতিবাদে সোমবার বরিশাল বিভাগের সকল জেলা ও উপজেলায় বিক্ষোভ মিছিলের ডাক দিয়েছে ছাত্রদল।

রবিবার রাত ১১ টার দিকে লেবুখালী ফেরিঘাট থেকে তাকে আটক করা হয়। এসময় আরও আটক করা হয় তার সঙ্গী মেহেন্দিগঞ্জের সালাহ্উদ্দিন, রফিকুল ইসলাম, সৈয়দ জসিম উদ্দিন, সাইফুল ইসলাম ও প্রাইভেট কারের চালক অসীম হাওলাদারকে। পুলিশ বলছে আটককৃত ছাত্রদল সভাপতির লাগেজ তল্লাশি করে ৪৫ পিস ইয়াবা ও এক বোতল মদ উদ্ধার করেছে। জব্দ করা হয়েছে তাদের ব্যবহৃত প্রাইভেট কার (ঢাকা মেট্রো গ-২১-৫৩৮৮)।

সংগঠনটির সহ-সভাপতি নাজমুল হাসান রাজিবের গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করলেও পটুয়াখালীর এএসপি সাহেব আলী পাঠান রাতে গনমাধ্যমকে বলেছিলেন, ‘ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি গ্রেপ্তার হওয়ার বিষয়টি আমরা এখনও জানি না। তবে কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আমরা যাচাই বাচাই করে আপনাদের জানাবো।’

এদিকে পটুয়াখালীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফয়েজ আহমেদ রাত ২টার দিকে তার কার্যালয়ের সংক্ষিপ্ত ব্রিফিংয়ে বলেন, ‘একাধিক মামলার আসামি’ রাজীব মাদকসহ কুয়াকাটা যাচ্ছে খবর পেয়ে দুমকি থানার ওসি আজম খান ফারুকীর নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল লেবুখালী ফেরীঘাটে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে।
ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি নাজমুল হাসান পুলিশের এমন দাবি নাকচ করে দিয়ে বলেন, বরিশালের মেহেদীগঞ্জে গ্রামের বাড়িতে স্বজনদের সঙ্গে দেখা এবং বাবার কবর জেয়ারত করে পটুয়াখালীতে এক আত্মীয়ের বাড়িতে গিয়েছিলেন রাজীব। সেখান থেকে ঢাকায় ফেরার পথে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এদিকে, কেন্দ্রীয় সভাপতিকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে সোমবার বরিশাল বিভাগের সকল জেলা ও উপজেলায় বিক্ষোভ মিছিলের ডাক দিয়েছে ছাত্রদল।

রাজিব আহসান ঢাকায় নিয়মিত মামলার আসামি হলেও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে তার বিরুদ্ধে পটুয়াখালীতে মামলা দায়ের করা হবে বলে পুলিশ জানিয়েছে।