ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১:৪৬ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ভয়াবহ ঝড়ে ১১ জনের প্রাণহানি ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে

যুক্তরাষ্ট্রে দক্ষিণাঞ্চলে ক্রিসমাস ইভে প্রলয়ংকরী ঝড় আঘাত হেনেছে। এতে কমপক্ষে ১১ জনের প্রাণহানি হয়েছে। আহত হয়েছে আরো অনেকে।
বার্তা সংস্থা এএফপি’র খবরে বলা হয়েছে, টর্নেডো গতরাতে মিসিসিপির উত্তরাঞ্চলের মধ্য দিয়ে অগ্রসর হয়েছে। এতে ওই এলাকায় সাত জন নিহত হয়েছে। এছাড়া টেনিসিতে আরো তিনজন ও আরাকানসাসে একজনের মৃত্যু হয়েছে।
অঞ্চলটিতে ছোট-বড় মিলিয়ে অন্তত ২০ টির মতো ঘূর্ণিঝড় আঘাত হেনেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। নিহতদের মধ্যে সাত বছরের এক বালক রয়েছে।
মিসিসিপিতে কয়েকটি ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানার পর কর্তৃপক্ষ বাড়ি বাড়ি উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে।
অঙ্গরাজ্যের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের একটি ছোট বিমানবন্দরে থাকা বেশ কয়েকটি বিমান উল্টে গেছে এবং অজ্ঞাত সংখ্যক লোক আহত হয়েছে।
ক্লার্কসডেলের মেয়র বিল লুকেট বলেন, ঘূর্ণিঝড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বিভিন্ন গাছে ধাতুর পাত আটকে রয়েছে। বেশ কয়েকটি বিমান উল্টে গেছে এবং একটি ভবন ধ্বংস হয়ে গেছে।
খবর পাওয়া গেছে, একটি ভয়াবহ টর্নেডো মিসিসিপিতে আঘাত হেনে ১শ’ মাইল বেগে টেনিসির দিকে চলে যায়।
গত বুধবার আরকানসাস, ইলিনয়, ইন্ডিয়ানা, মিসিসিপি, মিশিগান ও টেনিসিতে ওই ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানে।
গত বৃহস্পতিবার টর্নেডো পূর্বাঞ্চলের দিকে অগ্রসর হওয়ার প্রেক্ষাপটে ঘূর্ণিঝড়ের হুমকি হ্রাস পায়। তবে ভারী বর্ষণ ও বজ্রপাতে জর্জিয়া, আলবামা ও ক্যারোলাইনায় বন্যা দেখা দেয় ও যান চলাচলে বিঘœ ঘটে।
ওকলাহামায় জাতীয় ঝড় পূর্বাভাস কেন্দ্র ২০১৪ সালের জুনের পর প্রথমবারের মত ‘ বিপজ্জনক পরিস্থিতি’ ঘোষণা করে। ২০১৪ সালের জুনে দুটি ভয়াবহ টর্নেডোয় নেব্রাস্কা শহর বিধ্বস্ত হয় ও দুই জনের প্রাণহানি ঘটে।
সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, যুক্তরাষ্ট্রে বড়দিনের আগে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার সম্ভাবনা অস্বাভাবিক নয়।
এক বছর আগে একটি টর্নেডো মিসিসিপিতে আঘাত হেনেছিল। এতে ৫ জন নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়।
বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ঘূর্ণিঝড়ে মিসিসিপিতে সাতজন, টেনেসিতে তিনজন ও আরকানসাসে একজন নিহত হয়েছে।
একাধিক ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানার পর মিসিসিপির ঘরে ঘরে তল্লাশি ও উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে কর্তৃপক্ষ। মিসিসিপিতে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।