ব্রেকিং নিউজ

রাত ২:২৩ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

সম্প্রতি মঠবাড়িয়ায় নির্বাচনী সহিংসতায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতে নিহতদের ফাইল ফটো

মঠবাড়িয়ায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতে নৌকার সমর্থক ৫ জন নিহত

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার ধানিসাফা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে উদ্ভুত ঘটনায় আইন শৃংখলা বাহিনীর গুলিতে পাঁচজন নিহত হয়েছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে এবং কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। তবে পৌর মেয়র রফিউদ্দিন আহমেদ ফেরদৌস বলছেন নিহতের সংখ্যা ছয়জন।

নিহতরা হলেন পার্শ্ববর্তী ভান্ডারিয়া উপজেলার হরিণপালা গ্রামের আব্দুল মজিদ হাওলাদারের ছেলে শাহাদাত (৩৫) ও সাইদুল মৃধার ছেলে কামরুল (২৫),  মঠবাড়িয়ার বুড়িরচরের ফজলুল হক ছেলে সোহেল (২৬) ও গফুর মোল্লার ছেলে বেল্লাল (৩০),  লঞ্চঘাট,  বুড়িরচরের আনু তালুকদারের ছেলে সোলেমান (২৫)। শেষের দু’জনকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে পাঠানোর পথে তাদের মৃত্যু হয়।

এদের মধ্যে সোহেল ও শাহাদাত ধানিশাপা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী হারুন তালুকদারের ভাগিনা। নিহতরা সবাই নৌকার সমর্থক বলেই জানা গেছে।

এছাড়া ধানিসাফার  মনছের হকের ছেলে ইয়াসিন (২২) ও মৃত আব্দুল আজিজের ছেলে মনছুর, মৃত কাশেম আলী হাওলাদারের ছেলে মোঃ ইউনুস ও মৃত ডাঃ শাহজাহান হাওলাদারের ছেলে মোঃ সুমন হাওলাদারসহ অজ্ঞাত আহতদের বরিশাল, ভান্ডারিয়া ও  তুষখালীসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ও স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ধানীসাফা ইউনিয়নের সাফা ডিগ্রি কলেজ ভোট কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, ধানিসাফা ডিগ্রী কলেজ কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী হারুন অর রশীদের নৌকার সিল মারা ৭৪৬টি ব্যালট বাতিল ঘোষনাকে কেন্দ্র করে তার কর্মী-সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে প্রিজাইডিং অফিসারকে অবরুদ্ধ করে রাখে। এ খবর পেয়ে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট কাজী জিয়াউল বাসেতের নেতৃত্বে র‌্যাব ও বিজিবি সেখানে উপস্থিত হয়। এক পর্যায়ে ম্যাজিস্ট্রেট কাজী জিয়াউলকেও অবরুদ্ধ করে ফেলে। তখন জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশেই গুলি চালায় আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা। এ সময়  আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতে ছয়জন নিহত হন। আহত হন আরো অনেকেই।

এ ঘটনার পর মঠবাড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র রফিউদ্দিন আহমেদ ফেরদৌস ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে গণমাধ্যমকে জানান, গুলিতে ছয় জন নিহত হয়েছে। তবে মঠবাড়িয়ার থানার ওসি খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান গণমাধ্যমকে পাঁচ জন নিহতের খবর নিশ্চিত করেছেন।