Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৬:৫৩ ঢাকা, বুধবার  ২১শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

ভূমধ্যসাগর থেকে সিরিয়ার আইএস ঘাঁটিতে লাগাতার রুশ ক্ষেপণাস্ত্র হানা

সিরিয়ায় আরও বড় যুদ্ধে নামল রাশিয়া। শুরু হল আরও বড় ধরনের রুশ হানাদারি। সাবমেরিন থেকে ছোঁড়া হল ক্ষেপণাস্ত্র। এই প্রথম।

রাক্কায় ইসলামিক স্টেট (আইএস) জঙ্গিদের ঘাঁটিগুলো লক্ষ্য করে গত তিন দিন ধরে ভূমধ্যসাগরে সাবমেরিন থেকে ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়তে শুরু করেছে রুশ নৌবাহিনী। অত্যাধুনিক ওই ‘ক্যালিবার’ ক্ষেপণাস্ত্রগুলি টানা ৭২ ঘণ্টা ধরে ছোঁড়া হয়েছে রাক্কায় আইএসের ঘাঁটিগুলো লক্ষ্য করে।

মস্কোয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু মঙ্গলবার জানিয়েছেন, ‘‘ভূমধ্যসাগরে রুশ সাবমেরিন ‘রোস্তভ-অন-দন’ থেকে প্রচুর ‘ক্যালিবার’ ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া হয়েছে জঙ্গি ঘাঁটিগুলোকে লক্ষ্য করে। ওই ক্ষেপণাস্ত্র হানাদারি চলবে। প্রাথমিক ভাবে রাক্কায় আইএস জঙ্গিদের দু’টি গোপন ঘাঁটিকেই টার্গেট করা হয়েছে। তবে রাক্কা ও তার আশপাশের এলাকাগুলিতে জঙ্গিদের অন্য ঘাঁটিগুলোতেও হানা দেওয়া হবে। ওই হানাদারির কথা টেলি-কনফারেন্সে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকেও জানানো হয়েছে।’’

রাক্কায় ওই রুশ ক্ষেপণাস্ত্র হানায় কতটা, কী ক্ষতি হয়েছে আইেসের জঙ্গি ঘাঁটিগুলোর?

রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রীর দাবি, ‘‘আইএসের দু’টি ঘাঁটি তছনছ হয়ে গিয়েছে। ওই দু’টি ঘাঁটি ছিল রাক্কায় আইএস জঙ্গিদের অন্যতম প্রধান অস্ত্র ভাণ্ডার। গত ৭২ ঘণ্টায় রাক্কার যে জায়গাগুলি লক্ষ্য করে ভূমধ্যসাগরে সাবমেরিন থেকে ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া হয়েছে, সেখানে গত দু’-তিন বছর ধরে অস্ত্র নির্মাণ কারখানাও বানিয়েছিল আইএস জঙ্গিরা। তারই একটু দূরে, তেলের নতুন কূপ খোঁড়ারও চেষ্টা করছিল আইএস জঙ্গিরা। রুশ উপগ্রহ থেকে অনেক আগেই যে তেলের কূপগুলির ছবি তোলা হয়েছিল। এমনকী, ওই এলাকায় একটি তেল শোধনাগারও বানিয়েছিল আইএস জঙ্গিরা। ‘ক্যালিবার’ ক্ষেপণাস্ত্র হানায় সেই তেলের কূপ ও শোধনাগারও গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।’’

রাশিয়া যে নিজের খেয়ালখুশিতে ভূমধ্যসাগর থেকে সিরিয়ায় ওই ক্ষেপণান্ত্র হানাদারি শুরু করেনি, সম্ভবত সেটা বোঝাতেই, রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেছেন, ‘‘আমরা হঠাৎ করে কিছু করিনি। এর জন্য আমরা দীর্ঘ প্রস্তুতি নিয়েছি ভূমধ্যসাগরে। পাশের দেশ ইজরায়েল। তাই তেল আভিভকে ওই সম্ভাব্য হানাদারির কথা আগেই জানানো হয়েছিল। যেহেতু ভূমধ্যসাগর থেকে ওই ক্ষেপণাস্ত্র হানাদারি চলছে, তাই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকেও বিষয়টি আগেভাগেই জানানো হয়েছিল।’’

গত তিন দিনে ভূমধ্যসাগরে মোতায়েন রুশ সাবমেরিন থেকে কতগুলি ‘ক্যালিবার’ ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া হয়েছে রাক্কায় আইএস জঙ্গিদের ঘাঁটিগুলো লক্ষ্য করে?

রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, ‘‘রুশ বিমান ও নৌবাহিনী এখনও পর্যন্ত তিনশোটি ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়েছে ওই ঘাঁটিগুলোয়। শুধু রাক্কা শহরেই আমাদের মোট ছ’শোটি টার্গেট রয়েছে। গত তিন দিনে সবক’টিতেই চালানো হয়েছে ক্ষেপণাস্ত্র হানাদারি। এর পাশাপাশি, সিরিয়ার আকাশে রুশ বিমান হানাদারিও বা়ড়ানো হয়েছে। প্রেসিডেন্ট পুতিনের নির্দেশ মেনে বোমারু বিমানের সঙ্গে যৌথ ভাবে সিরিয়ার আকাশে হানাদারি চালাচ্ছে রুশ যুদ্ধবিমানও।’’ আনন্দবাজার