ফাইল ফটো

ভুল সিদ্ধান্তের কারণে খালেদা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন: হানিফ

আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ এমপি বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া রাজনীতিতে তার ভুল সিদ্ধান্তের জন্য দলীয় নেতা-কর্মী এবং জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন।
তিনি বলেন, তিনি (বেগম খালেদা জিয়া) তার দলীয় নেতৃত্ব রক্ষা করার জন্য ইফতার মাহফিলে নানা অসংলগ্ন কথাবার্তা বলছেন। তবে তিনি যতই অসংলগ্ন কথাবার্তা বলুক না কেন তার পক্ষে আর দলীয় নেতৃত্বে থাকা সম্ভব হবে না।
আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, বিএনপিকে রক্ষা করতে হলে দলীয় নেতৃত্ব থেকে বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানকে সরানোর কোন বিকল্প নেই।
হানিফ গতকাল বিকেলে রাজধানীর কারওয়ান বাজারস্থ ওয়াসা ভবনে ঢাকা ওয়াসা শ্রমিক ইউনিয়ন সিবিএ ’র উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
ঢাকা ওয়াসা শ্রমিক ইউনিয়নের সিবিএ ’র সভাপতি আলহাজ মো. হাফিজ উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের শ্রম ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, জাতীয় শ্রমিক লীগের কার্যকরি সভাপতি ফজলুল হক মন্টু এবং ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা সম্পাদক প্রকৌশলী তাকসিম এ খান।
মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেন, বেগম খালেদা জিয়া ইফতার মাহফিলে বর্তমান সরকারকে জালেম সরকার হিসেবে উল্লেখ করে বর্তমান সরকারের ধ্বংস কামনা করেছেন।
তিনি বলেন, বিএনপি নেতৃত্বাধীন চার দলীয় জোট সরকার ক্ষমতায় থাকার সময় দেশকে জঙ্গী রাষ্ট্রে পরিনিত করা হয়েছিল আর রাষ্ট্রীয় সম্পদ লুটপাটের মাধ্যমে হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করা হয়েছিল।
হানিফ বলেন, বিএনপির যে সকল নেতা-কর্মী গ্রেফতার হয়ে কারাগারে রয়েছে তাদের সকলকে সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে বিভিন্ন মামলার আসামী হিসেবে গ্রেফতার করা হয়েছে। হরতাল-অবরোধের নামে দীর্ঘ তিন মাস পেট্রল বোমা মেরে যারা নীরিহ মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করেছে তাদেরকে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা বিচারের আওতায় এনেছে।
তিনি বলেন, হরতাল-অবরোধ চলাকালে হাতেনাতে যাদের গ্রেফতার করা হয়েছে তারা সকলেই জামায়াত, বিএনপি, ছাত্রদল বা যুবদলের নেতা-কর্মী। যারা সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদী কর্মকান্ড করেছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কেউ ঠেকাতে পারবে না।
আওয়ামী লীগের এ নেতা আরো বলেন, বেগম খালেদা জিয়া ক্ষমতায় যাওয়ার লোভে অন্ধ হয়ে দেশের নিরীহ মানুষকে পুড়িয়ে মারার নির্দেশ দিয়েছিলেন। তার দায় বেগম খালেদা জিয়াকে বহন করতে হবে।