ব্রেকিং নিউজ

সকাল ১১:৩২ ঢাকা, শুক্রবার  ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ইম্ফলে ভেঙে পড়েছে বাড়ি। নিজস্ব চিত্র।

ভারতে ভূমিকম্পে নিহত ৫, আহত ৫০

বড়সড় ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল কলকাতা, রাজ্য-সহ গোটা উত্তর-পূর্ব ভারতের মাটি। সোমবার ভোর ৪টে ৩৯ নাগাদ এই ভূমিকম্প হয়। রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা ৬.৮। ভূমিকম্পের উত্সস্থল মণিপুরের রাজধানী ইম্ফল থেকে প্রায় ৩৫ কিলোমিটার দূরে তমেংলঙ বলে আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে। বেশ কয়েক সেকেন্ড ধরে কম্পন স্থায়ী হয়। এ দিনের কম্পনের উত্সস্থল ভূপৃষ্ঠ থেকে ১৭ কিলোমিটার গভীরে বলে প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে। ভূমিকম্পে পাঁচ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। আহত অন্তত ৫০ জন। মৃতেরা প্রত্যেকেই মণিপুরের বাসিন্দা। মণিপুরেই আহত হয়েছেন অন্তত ৩৩ জন।

মণিপুর-সহ উদ্ধারকার্য তদারকি করতে গুয়াহাটি থেকে ইম্ফলে পাঠানো হয়েছে বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর দু’টি দলকে। তৈরি থাকতে বলা হয়েছে আরও ১২টি দলকে।

এই ভূমিকম্পের প্রভাব পড়েছে গোটা উত্তরপূর্ব ভারত-সহ প্রতিবেশী দেশ মায়ানমার-বাংলাদেশেও। রাজধানী ঢাকা-সহ কম্পন অনুভূত হয়েছে প্রায় সমগ্র বাংলাদেশ জুড়ে।  কম্পনের পরই প্রধানমন্ত্রী টুইট করে বলেন, “অসমের মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈয়ের সঙ্গে টেলিফোনে যোগাযোগ করে রাজ্যের অবস্থার কথা জেনেছি।”
ভূবিজ্ঞানীরা বলছেন, মণিপুরের এই অঞ্চলটি ভূমিকম্পপ্রবণ। এর তলায় বার্মিজ আর্ক আছে। আর আছে ভারতীয় প্লেট। একে আরাকান ইয়োমা সাবডাকশন জোন বলে। তার ফলে ১৯৩০ সাল থেকে সংগৃহীত তথ্যে দেখা যাচ্ছে এই অঞ্চলে বার বার ৬-৬.৫ মাত্রার ভূমিকম্প হয়েছে। তবে ভূবিজ্ঞানীরা এটা জানিয়েছেন, নেপাল ভূমিকম্পের সঙ্গে এই কম্পনের একটা ফারাক রয়েছে। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সুগত হাজরা বলেছেন, “নেপালের ক্ষেত্রে একটি প্লেট আরেকটি প্লেটের তলায় ঢুকে গিয়েছিল। এ ক্ষেত্রে মনে হচ্ছে একটি প্লেট আরেকটি প্লেটের থেকে দূরে যাওয়াতেই এই ঘটনা।”আনন্দবাজার