শীর্ষ মিডিয়া

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৯:২৮ ঢাকা, বুধবার  ১৯শে ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

গভর্নর ফজলে কবির
বাংলাদেশ ব্যাংকের (বিবি) গভর্নর ফজলে কবির, ফাইল ফটো

ভল্টের স্বর্ণ চুরির কোনো সুযোগ নেই : গভর্নর

বাংলাদেশ ব্যাংক ভল্টের জন্য ৪২টি সিসিটিভি ক্যামেরা সম্বলিত ছয়-স্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা রক্ষা করা হয় উল্লেখ করে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির বলেছেন, এই নিরাপত্তা বলয় ভেদ করে স্বর্ণ চুরি করার কোনো সুযোগ নেই।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টে কাস্টমস কর্মকর্তারা স্বর্ণ যে অবস্থায় রেখে গিয়েছিলেন, ঠিক সেই অবস্থাতেই আছে। ভল্টে কাস্টমস কর্মকর্তাদের রাখা স্বর্ণের কোনো হেরফের হয়নি। বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্ট খুবই সুরক্ষিত। ছয়-স্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যে ৪২টি সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো রয়েছে। এছাড়া সার্বক্ষণিক পুলিশি প্রহরা তো রয়েছেই।’ চলতি অর্থবছরের প্রথমার্ধের (২০১৮-১৯, জুলাই-ডিসেম্বর) জন্য মুদ্রানীতি ঘোষণা উপলক্ষে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সদরদপ্তরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে গভর্নর আজ এ কথা বলেন।

সম্প্রতি একটি বাংলা দৈনিক বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টে স্বর্ণ কেলেঙ্কারির খবর প্রকাশ করেছিল। এ প্রসঙ্গে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নানও বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টের সুরক্ষায় ছয়-স্তরের নিরাপত্তা বিদ্যমান থাকার কথা উল্লেখ করে বলেছিলেন এমনকি খোদ বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরকেও ভল্ট পরিদর্শনের জন্য দুই থেকে তিন জায়গা থেকে অনুমতি নিতে হয়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক এসএমরবিউল হাসান এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ভল্ট নিয়ে সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত রিপোর্টটি মোটেই সঠিক ও বাস্তবসম্মত নয়।

রবিউল হাসান বলেন, ‘অনুমতি ছাড়া কাউকে ভল্ট এলাকায় ঢুকতে দেয়া হয় না। এমনকি ভল্ট পরিদর্শন করতে চাইলে ডেপুটি গভর্নরদেরও পাস নিয়ে যেতে হয়।’

একই সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ ব্যাংকের কারেন্সি অফিসার( মহাব্যবস্থাপক) আওলাদ হোসাইন চোধুরি বলেন, কাস্টমস গোয়েন্দাদের পরিমাপ অনুযায়ী রক্ষিত স্বর্ণের বিশুদ্ধতা ৪০ শতাংশ হলেও বাংলা চার (৪) ও ইংরেজি আটের (৪) সাদৃশ্যের কারণে আশি শতাংশ রেকর্ড করা হয়।

তিনি বলেন, শখ জুয়েলার্সের একজন রেজিস্টার্ড স্বর্ণকার এ ভুল করেন বলে তিনি দাবি করেন।