Press "Enter" to skip to content

‘বেলুচিস্তানে গুম-খুন-নির্যাতন চালাচ্ছে পাক নিরাপত্তা বাহিনী’

পাকিস্তানের নিরাপত্তা বাহিনীরহাতে প্রতিনিয়ত গুম, খুন ও নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন বেলুচিস্তানের বাসিন্দারা। সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য উঠে এসেছে।

বেলুচিস্তানের মানবাধিকার কাউন্সিল জানায়, ২০১৯ সালের প্রথম ৬ মাসে পাকিস্তানের নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে ৩৭১ জন গুম ও অন্তত ১৫৮ জন হত্যার শিকার হয়েছেন।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচডগ অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল তাদের প্রতিবেদনে জানায়, ২০১১ সাল থেকে শত শত বেলুচিস্তানের বাসিন্দাদের গুমের মাধ্যমের খুন করা হয়েছে।

পাকিস্তান সরকারের পরিচালিত, বলপূর্বক নিখোঁজ হওয়া সম্পর্কিত তদন্ত কমিশনের হাতে ২০১৯ সালের মার্চ পর্যন্ত তাদের কাছে গুম হয়ে যাওয়ার ২ হাজার অমীমাংসিত মামলা ছিল।

বেলুচের রাজনৈতিক কর্মীরা এমন গোপন রিপোর্ট ‘দ্য নিউ আরব’র কাছে ফাঁস করে। দ্য নিউ আরব জানায় এসব গুম এবং বিচার বহির্ভূত হত্যার মামলা।

এসব ফাঁস হওয়া তদন্তে আরও জানা যায়, পাকিস্তানি নিরপত্তা বাহিনী প্রতিনিয়ত বেলুচিস্তানের বাসিন্দাদের নারী ও শিশুদের অমানষিক নির্যাতন চালায়।

মেহলাব বেলুচ যখন তার বয়স ৯ বছর, ২০০৯ সালে তাঁর বাবাকে পাকিস্তানি সেনারা তুলে নিয়ে যায়। এর বিরুদ্ধে মামলা করতে গেলেও পুলিশ কোন মামলা গ্রহণ করেনি বলে জানা যায়।

মেহলাব দ্য নিউ আরব’কে বলেন, আমাদের জীবন এখানে চরম দুর্দশার ছাড়া কিছুই না। এখানে আমাদের সুখ বলে কিছু নেই। তিনি আরও জানান তাঁর বাবা এখন পর্যন্ত নিখোঁজ।

মামা কাদির নামে আরেক জন জানান, তাঁর সন্তানকে ২০০৯ সালে পাকিস্তানি সেনারা তুলে নিয়ে যায়।

১৯৪৭ সালের দেশভাগের সময় পাকিস্তানের সঙ্গে যুক্ত হয় এই প্রদেশটি। প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর এই অঞ্চলে একটি প্রাদেশিক সরকার রয়েছে।

পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর বহুল উপস্থিতি ও কড়া নজরদারির মধ্যে আছে বেলুচিস্তান।

সম্প্রতি পাকিস্তান থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র গড়তে ভারতের সহায়তা কামনা করেছেন বেলুচিস্তানের অধিকারকর্মীরা। তবে বেলুচদের স্বাধীনতার আন্দোলনকে বিচ্ছিন্নতাবাদী কর্মকান্ড হিসেবে দেখে আসছে পাকিস্তান। তথ্য সূত্র: দ্য নিউ আরব, হিন্দুস্তান টাইমস।

শেয়ার অপশন: