Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৩:০৭ ঢাকা, শুক্রবার  ১৬ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

কামরুল ইসলাম
খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মো. কামরুল ইসলাম, ফাইল ফটো

“বেগম জিয়ার শুভবুদ্ধির উদয় হয়েছে”

খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেছেন,  দেখে শুনে মনে হচ্ছে বেগম জিয়ার শুভবুদ্ধির উদয় হয়েছে।
তিনি বলেন, ১২ আগষ্ট বেগম জিয়া লন্ডনে যাবেন। দেখে শুনে মনে হচ্ছে বেগম জিয়ার শুভবুদ্ধির উদয় হয়েছে। বেগম খালেদা জিয়া তার ভুলের খেসারত দিচ্ছেন।
খ্দ্যা মন্ত্রী বলেন, যে কোন পদ্ধতিতে বেগম জিয়া নির্বাচন চান। মনে হয় বেগম জিয়া ঠেকে শিখেছেন।
তিনি বলেন, যে কোন হত্যার বিচার করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বদ্ধপরিকর। প্রধানমন্ত্রী কোন ছাড় দেবেন না। বিশ্বজিৎ হত্যার বিচার দ্রুত সময়ে করা হয়েছে। ৮ জন ছাত্রলীগ নেতাকে ফাঁসি দেয়া হয়েছে। জোবায়ের হত্যা মামলার আসামীদের ফাঁসি হয়েছে।
খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ৫ জানুয়ারীর পর হত্যা অগ্নিসংযোগ ও নৃশংসতাকারীদের তাদের কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।
তিনি শিশু ও নারী হত্যা এবং ধর্ষণের বিরুদ্ধে দলমত নির্বিশেষে সকলেকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, যারা শিশু ও নারী হত্যা এবং ধর্ষন করেছে তাদেরকে ছাড় দেয়া হবে না। তাদের বিচার করা হবে। শুধু তাই নয়, যারা অর্থের যোগান ও পরিকল্পনা করেছে তাদেরকেও ছাড় দেয়া হবে না। এ পাশবিকতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।

মন্ত্রী শুক্রবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির রাউন্ড টেবিল হলে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৮৫তম জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষ্যে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব পরিষদ আয়োজিত আলোচান সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন ডাক ও টেলিযোগায়োগ প্রতিমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি অ্যাডভোকেট তারানা হালিম। বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভেকেট আফজাল হোসেন, অগ্রণী ব্যাংকের পরিচালক বলরাম পোদ্দার, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি মো: সাইফুর রহমান সোহাগ, পরিষর্দে সাধারণ সম্পাদক আবদুস ছালাম মৃধা প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক সৈয়দ ড. আবদুল মান্নান চৌধুরী।
খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, পনেরই আগষ্ট কাল রাতে বঙ্গবন্ধুর শিশু সন্তান শেখ রাসেলকে হত্যা করা হয়েছিল। জিয়াউর রহমান ইডেমেনিটি বিল জাতীয় সংসদের পাশ করিয়ে শিশু রাসেল হত্যার বিচারের পথ রুদ্ধ করে দেয়।

তিনি বলেন, অপরাধের মূল কারন মাদক। মাদক সেবনকারীদের বিকৃত মানসিকতা রয়েছে। এদের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।
ডাক ও টেলিযোগায়োগ মন্ত্রী তারানা হালিম বলেন, জাপানী এক সাংবাদিক জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সাক্ষাৎকার নেয়ার সময় বলেছিলেন ‘ছোট এই শিশু (রাসেল) আপনার সাথে ঘুর ঘুর করে কেন।
প্রতিউত্তরে জাতির জনক বলেছিলেন, ‘এটি আমার ছেলে। আমি তো জেলেই থাকি। এ কারনে ওর কাছ ছাড়া না হই, এ জন্য আমার সাথে থাকে।