ব্রেকিং নিউজ

রাত ৩:৪৭ ঢাকা, বুধবার  ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

বিশাল ব্যবধানে পরাজিত হলো বাংলাদেশ

Like & Share করে অন্যকে জানার সুযোগ দিতে পারেন। দ্রুত সংবাদ পেতে sheershamedia.com এর Page এ Like দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকতে পারেন।

 

বিশ্বকাপের তৃতীয় ম্যাচে শ্রীলংকার কাছে ২৪০ রানেই গুটিয়ে গেলো বাংলাদেশ।  শ্রীলংকার দেয়া ৩৩৩ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ৯২ রানের বিশাল ব্যবধানে পরাজিত হলো টাইগাররা। ৩ ওভার বাকি থাকতে ৪৭ ওভারে অলআউট হয় মাশরাফির দল।  এ খেলায় তেমন প্রতিদ্বন্দ্বিতাও গড়ে তুলতে পারেনি বাংলাদেশের ছেলেরা।
শ্রীলংকা দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট পেয়েছেন লাশিথ মালিঙ্গা। এর ফলে ৪ পয়েন্ট পেয়ে গ্রুপের পয়েন্ট তালিকার তৃতীয় স্থানে উঠে গেলো শ্রীলংকা।
বৃহস্পতিবার প্রথমে টসে জিতে ব্যাট করে ৩৩২ রান করে শ্রীলংকাদল।বিশাল রান তাড়া করতে গিয়ে শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ।
শ্রীলংকা দলের দুজন ব্যাটসম্যান সেঞ্চুরি করলেও বাংলাদেশ দলের একমাত্র সাব্বির ছাড়া আর কোন ব্যাটসম্যান হাফ সেঞ্চুরি করতে পারেননি।
খেলা শুরুর পর ইনিংসের দ্বিতীয় বলে ব্যক্তিগত শূণ্যরানে আউট হয়ে যান ওপেনার তামিম ইকবাল।
তামিম ফিরে যাওয়ার পর ১৫ বলে ২৫ রান করে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের বলে সাঙ্গাকারার ক্যাচে পরিণত হন সৌম্য। এর ক্রিজে আসেন মমিনুল। মাত্র ১ রান করেই আউট হয়ে যান মমিনুল।
মাহমুদুল্লাহ এনামুল ব্যাট করে কিছুটা স্বস্তি দিলেও ব্যক্তিগত ২৯ রানের মাথায় রান আউট হয়ে যান এনামুল। কিছুক্ষণ পর ব্যক্তিগত ২৮ রান করে মাহমুদুল্লাহ আউট হন। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৬ রান করে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরেছেন অলরাউন্ডার সাকিব। সর্বশেষ ৪৬ ওভাবে বাংলাদেশের সংগ্রহ দাড়িয়েছে ৮ উইকেটে ২৩৬ রান।

এর আগে সকালে টসে জিতে টাইগারদের তুলোধুনো করে ৩৩৩ রানের টার্গেট দিয়েছে শ্রীলংকা। বৃহস্পতিবার মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে শ্রীলংকা দলের দিলশান ও সাঙ্গাকারা ডবল সেঞ্চুরি করে বড় স্কোর গড়তে সক্ষম হন।

বিশ্বকাপের এই ম্যাচে ১৬১ রান দিলশানের ব্যক্তিগত ক্যারিয়ারের সর্বোচ্চ ইনিংস। আর দিলশানের ৪০০তম ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ২২তম সেঞ্চুরি।

সেই সাথে বড় চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলো বাংলাদেশকে। আর পুরো খেলায় ক্যাচ মিসের মাশুল গুনতে হলো মাশরাফির দলকে।

বিশ্বকাপে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে  দিলশানের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে বড় সংগ্রহ করতে সক্ষম হয় শ্রীলঙ্কা।  ওপেনিং এ নেমে ১৪৬ বল খেলে ১৬১ রানের ঝড়ো ইনিং খেলেন দিলশান।

তাকে সঙ্গ দিয়ে ১০৫ রানের আরেকটি সেঞ্চুরি করেন সাঙ্গাকারা। এদিক থেকে বাংলাদেশ দলের বোলাররা ছিলেন একেবারেই ব্যর্থ।

ব্যক্তিগত ৫২ রানে রুবেলের বলে তাসকিনের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন থিরিমান্নে।একমাত্র উইকেটটি পেয়েছেন রুবেল হোসেন।

প্রথম ওভারেই মাশরাফির তৃতীয় বলে স্লিপে এনামুল হকের ক্যাচ মিস হয়। এরপর সাব্বিরের বলে স্ট্যাম্পিংয়ের হাত থেকে জীবন পেয়ে যান তিনি।

ভাষ্যকার উইকেট কিপারের এই ব্যর্থতাকে ছেলে মানুষি বলে আখ্যায়িত করতে দ্বিধাবোধ করেননি। ফিল্ডিংয়ের দিক থেকেও বাংলাদেশ দল ছিলো বেশ দুর্বল।

আফগানিস্তানকে ১০৫ রানে হারিয়ে বিশ্বকাপ অভিযানে শুভ সূচনা করে বাংলাদেশ। বৃষ্টির কারণে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তাদের পরের ম্যাচটি পরিত্যক্ত হয়ে যায়।
অন্যদিকে নিজেদের প্রথম ম্যাচে নিউ জিল্যান্ডের কাছে ৯৮ রান হারে শ্রীলঙ্কা। আফগানিস্তানের বিপক্ষে পরের ম্যাচে ঘাম ঝরিয়ে ৪ উইকেটে জেতে তারা।