Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১০:২২ ঢাকা, রবিবার  ১৮ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

মোহাম্মদ নাসিম
কাঠমান্ডুতে বিমান দুর্ঘটনায় আহত শাহরিন আহমেদ ঢাকা মেডিকেলে দেখতে গিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

বিমান দুর্ঘটনায় আহতদের চিকিৎসায় প্রস্তুত

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, কাঠমান্ডুর বিমান দুর্ঘটনায় আহতদের চিকিৎসা সেবায় সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ মতে বিমান দুর্ঘটনায় আহতদের চিকিৎসক সেবা দিতে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পূর্ণ করেছি। চিকিৎসা সেবায় যেন কোনো গাফেলতি না হয় সে ব্যবস্থাও আমরা করেছি। তিনি বলেন, আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করব দ্রুত আহতদের সুস্থ করে তোলার। এছাড়া আহতদের মানসিক ও শারীরিক চিকিৎসাসেবা দেয়ার জন্য আমরা প্রস্তুত রয়েছি।’

মোহাম্মদ নাসিম আজ শুক্রবার ঢাকা মেডিকেল করেজ হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে নেপালের কাঠমান্ডুতে বিমান দুর্ঘটনায় আহত শাহরিন আহমেদ দেখতে গিয়ে তাৎক্ষণিক এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন।

তিনি বিমান দুর্ঘটনায় আহতদের চিকিৎসা সেবায় বিঘ্ন না ঘটানোর জন্য অযথা ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে ভিড় না করার অনুরোধ জানান।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে আমি নিজেই যেতে চাইনি, কিন্তু রোগীর খোঁজ-খবর ও চিকিৎসা ব্যবস্থা তদারকি করতে আমার যেতে হয়েছে। সেজন্য আমি সকলকে বলছি, বিমান দুর্ঘটনায় আহত রোগীদের দেখতে বার্ন ইউনিটে অযথা ভিড় জমাবেন না। এতে করে যেমন রোগী ও স্বজনরা বিব্রত হচ্ছেন তেমনি তাদের চিকিৎসা ব্যবস্থাও বাধাগ্রস্ত হবে।’

বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক অধ্যাপক ডা. সামন্ত লাল সেনও সংবাদ সম্মেলনে বক্তৃতা করেন। তিনি বলেন, ‘শাহরিনের শরীরে পাঁচ শতাংশ বার্ন হয়েছে। আমরা বৃহষ্পতিবার তার শরীরের ক্ষত স্থানে ড্রেসিং করেছি। তিনি এখন সুস্থ আছেন’।

সামন্ত লাল বলেন, যেহেতু দুর্ঘটনায় শাহরিনের পায়ের হাড় ভেঙ্গে গেছে তাই তার পায়ে অস্ত্রোপচার করতে হবে। এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে আগামী রোববার বার্ন ইউনিটে বিশেষজ্ঞদের নিয়ে একটি বোর্ড বসানো হবে।

‘নেপালে আমাদের যে স্বাস্থ্য টিম গিয়েছে, সে টিমের সঙ্গে আমরা সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছি। সব প্রক্রিয়া শেষ হলে ওখানে থাকা বাংলাদেশি রোগীদের দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করবে স্বাস্থ্য টিম’ বলেও তিনি উল্লেখ করেন।