ব্রেকিং নিউজ

রাত ১:৫৫ ঢাকা, শুক্রবার  ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

বিভাগ পর্যায়ে ‘নভোথিয়েটার’ স্থাপনে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) আজকের সভায় মোট চার হাজার ৯শ’ একষট্টি কোটি ৪২ লাখ টাকা ব্যয় সম্বলিত ৯টি (নতুন ও সংশোধিত) প্রকল্প অনুমোদন দেয়া দেয়া হয়েছে।
অনুমোদন দেয়া অন্যান্য প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে- বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নভোথিয়েটার, চট্টগ্রাম মহাসড়ককে ৪ লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্প (তৃতীয় সংশোধিত প্রকল্প) এবং সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীদের জন্য ৪৫৬টি ফ্লাট নির্মাণ প্রকল্প।
আজ ঢাকায় শেরেবাংলা নগরে এনইসি ভবনে প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপার্সন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেক-এর একবিংশতম সভায় এ অনুমোদন দেয়া হয়।
বৈঠকে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীগণ, একনেক সদস্যবৃন্দ, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, মুখ্য সচিব এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ও সচিববৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বৈঠক শেষে এক প্রেস ব্রিফিং বৈঠকের বিস্তারিত উল্লেখ করে বলেন, জাতি হিসেবে স্বপ্ন শিখরে পৌছুতে জ্ঞানভিত্তিক অর্থনীতি ্ও জ্ঞানভিত্তিক সমাজ বিনির্মাণের কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। ভিশন ২০২১, ২০৩০ দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা এবং ২০৪০ সালের মধ্যে উন্নত জাতি গঠনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হানিনার স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আমরা কাজ করছি।
তিনি বলেন, প্রযুক্তি নির্ভল জ্ঞান আহরণে নতুন প্রজন্মকে অনুপ্রাণিত করতে দেশের প্রতিটি বিভাগে পর্যায়ক্রমে নভোথিয়েটার স্থাপনে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন।
তিনি বলেন, সময় ও প্রয়োজনের নিরিখে দেশের পুলিশ সেবার চাহিদা বৃদ্ধি পেয়েছে এবং সাথে সাথে পুলিশের জনবল বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় ত্রিশ হাজার এবং আগামী কয়েক বছরে আরও পঞ্চাশ হাজার পুলিশ সদস্য নিয়োগ দেয়া হবে। কিন্তু তাদের ভৌত আবাসন সুবিধা সে তুলনায় বৃদ্ধি পায়নি। পুলিশ সদস্য বৃদ্ধির সাথে সামঞ্জস্য রেখে তাদের জন্য ১২টি ব্যারাক তৈরি করার প্রস্তাবিত প্রকল্পটি একনেকে অনুমোদন দেয়া হয়েছে।
পাশাপাশি রাজধানীতে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আবাসন সংকট নিরসনে মালিবাগে ৪৫৬টি এবং গণপূর্ত অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য মিরপুরে ২শ’ ৮৮টি আবাসিক ফ্লাট নির্মাণে পৃথক দুটি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে বলে মন্ত্রী জানান।
পরিকল্পনা মন্ত্রী বলেন, দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ ও আধুনিকায়নে সরকার বদ্ধপরিকর। এরই ধারাবাহিকতায় আজকের একনেক সভায় ময়মনসিংহের গফরগাঁও-এ টোক সড়কের অপর ২৮৩ মিটার দীর্ঘ পিসি গার্ডার সেতু নির্মাণ প্রকল্প একনেক সভায় অনুমোদন দেয়া হয়। সেতুটি বাস্তবায়িত হলে গফরগাঁও কাপাসিয়া ও মনোহরদীর মধ্যে সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজতর হবে।
একনেক বৈঠকে অনুমোদিত অন্যান্য প্রকল্পগুলো হচ্ছে- রাজশাহী স্থাপনা প্রকল্প, ফরিদপুর জেলার সদর উপজেলার গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন, কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের রাস্তা ড্রেন ও ফুটপাত উন্নয়ন, রাজশাহী মহানগরীতে পানি সরবরাহ ব্যবস্থার পুনঃসংস্কার, পিরোজপুর জেলাধীন মঠবাড়িয়া উপজেলা গ্রামীণ সড়ক উন্নয়ন এবং ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ককে ৪ লেনে উন্নীতকরণ (তৃতীয় সংশোধিত প্রকল্প)।
পরিকল্পনা মন্ত্রী জানান, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চার লেন প্রকল্প বাস্তবায়ন শেষ হওয়ার পর নতুন করে ঢাকা-চট্টগ্রাম এলিভেটেড এক্সপ্রেস সড়ক প্রকল্প গ্রহণের জন্য প্রধানমন্ত্রী সংশ্লিষ্টদের কাজ শুরু করার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন।
পরিকল্পনা বিভাগের সচিব তারিক-উল ইসলাম এবং পরিকল্পনা কমিশনে সদস্যগণ প্রেস ব্রিফিং-এ উপস্থিত ছিলেন।