ব্রেকিং নিউজ

রাত ৮:৫৫ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ২১শে জুন ২০১৮ ইং

রুহুল কবির রিজভী
রুহুল কবির রিজভী

‘বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালন করবেই বিএনপি’

আওয়ামী লীগের এক শীর্ষ নেতা ৭ নভেম্বর বিএনপির কর্মসূচি প্রতিহত করার হুমকি দেয়ার পরও ওইদিন সমাবেশ করার বিষয়ে অনড় অবস্থানের কথা জানিয়েছে দলটির বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

মঙ্গলবার নয়াপল্টনে বিএনপির কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের এই সিদ্ধান্তের কথা জানান তিনি। রুহুল কবির রিজভী বলেন, ৭ নভেম্বর গণতন্ত্র ফিরে পাবার ও স্বাধীনতা সুরক্ষার একটি মহান দিন। এই দিবস পালিত হবে। আমি বিএনপির পক্ষ থেকে বলছি, হানিফ সাহেবরা প্রতিহত করুন। আমরা জলপাইয়ের পাতা নিয়ে এগিয়ে যাব, দিবসটি পালন করবোই।

বাংলাদেশের ইতিহাসে ঘটনবহুল এই দিনটিকে ‘বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ হিসেবে পালন করে থাকে বিএনপি। অন্যদিকে আওয়ামী লীগ পালন করে ‘মুক্তিযোদ্ধা সৈনিক হত্যা দিবস’ হিসেবে; জাসদ দিনটি পালন করে ‘সিপাহি জনতার অভ্যুত্থান দিবস’ হিসেবে।

গত ২০ অক্টোবর বিএনপি এই দিনে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। কিন্তু ওই দিন বিএনপির কর্মসূচি ঠেকানোর হুমকি দিয়েছে আওয়ামী লীগ। দলটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ সোমবার এক আলোচনা সভায় বলেন, ‘পঁচাত্তরের ৩ নভেম্বরের ঘটনা আড়াল করতে সিপাহী বিপ্লবের নামে পঁচাত্তরের ঘাতকগোষ্ঠি তথাকথিত বিপ্লব দিবস পালন করে। এই দিন তারা হাজারো সেনা সদস্যকে হত্যা করেছে। এই সেনা হত্যাকারীদের মাঠে নামার কোনো সুযোগ দেয়া হবে না। তাদেরকে কঠোরভাবে প্রতিহত করা হবে। বিপ্লবের নামে এই ঘাতকদের আশ্রয় প্রশ্রয় দেয়ার কোনো সুযোগ নেই।’

এর জবাবে সংবাদ সম্মেলনে রিজভী বলেন, আমরা বিশ্বাস করি, হানিফ সাহেব যে কথা বলেছেন, এটা তার ব্যক্তিগত বক্তব্য, সরকারের বক্তব্য নয়। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, এই সমাবেশ সরকার করতে দেবে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিশেষ করে, পুলিশও তা অনুমোদন দেবে। তাদের কাছ থেকে আমরা বিভিন্নভাবে ইংগিতও পাচ্ছি।

দলের চেয়ারপাসন খালেদা জিয়া উপস্থিতিতে ওই সমাবেশ শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠানের জন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলে তিনি জানান।

আওয়ামী লীগ নেতা হানিফের উদ্দেশে রিজভী বলেন, আপনাদের অস্ত্র আছে, রাইফেল আছে, আপনাদের সাজানো আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আছে, আপনারা অনেক কিছুই করতে পারেন। কিন্তু মানুষের হূদয়ের ভেতরে যে দিবসটি পালিত হয়, সেই দিবসটি মুছবেন কি করে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, হাবিবুর রহমান হাবিব, শাহজাদা মিয়া, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, এ বিএম মোশাররফ হোসেন।