ব্রেকিং নিউজ

রাত ১২:৪২ ঢাকা, মঙ্গলবার  ১৯শে জুন ২০১৮ ইং

বিতর্কিত সেই গমকে খাবার উপযোগী বলে প্রতিবেদন দিল খাদ্য অধিদপ্তর

মান নিয়ে প্রশ্নের সম্মুখিন ব্রাজিল থেকে আমদানি করা প্রায় ৪০০ কোটি টাকা মূল্যের বিতর্কিত সেই গম মানুষের খাওয়ার উপযোগী বলে হাইকোর্টে প্রতিবেদন দিয়েছে খাদ্য অধিদপ্তর। প্রতিবেদনে বলা হয় চুক্তিপত্র মোতাবেক গ্রহণীয় সীমার মধ্যে থাকায় মানুষের খাওয়ার উপযোগী বলে প্রত্যয়ন করা হলো।”

রোববার বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে এ প্রতিবেদন জমা দেওয়া হয়। এর আগে গত ৩০ জুন এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে ওই গম মানুষের খাওয়ার উপযোগী কিনা ৭২ ঘণ্টার মধ্যে খাদ্য অধিদপ্তরের কাছে সে সংক্রান্ত প্রতিবেদন চেয়েছিলো হাইকোর্ট।

এরপর  রোববার খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের পক্ষ থেকে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস

আদালতে প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন।

লিখিত প্রতিবেদনে বলা হয়, “খাদ্য অধিদপ্তরের পরীক্ষাগারসহ বিভিন্ন পরীক্ষাগার থেকে প্রাপ্ত সকল রিপোর্ট মোতাবেক ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ব্রাজিল থেকে আমদানিকৃত আলোচ্য গম চুক্তিপত্র মোতাবেক গ্রহণীয় সীমার মধ্যে থাকায় মানুষের খাওয়ার উপযোগী বলে প্রত্যয়ন করা হলো।”

তবে ওই প্রতিবেদনের বিষয়ে আপত্তি জানিয়ে রিটকারীর আইনজীবী এম মাহবুব উদ্দিন খোকন প্রশ্ন তুলে শুনানির জন্য আবেদন করেছেন। ৮ জুলাই এ বিষয়ে পরবর্তী শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

ব্রাজিল থেকে নিম্নমানের গম আমদানিতে দুর্নীতির অভিযোগ দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মাধ্যমে খতিয়ে দেখার নির্দেশনা চেয়ে সম্প্রতি জনস্বার্থে রিট আবেদনটি করেন আইনজীবী পাভেল মিয়া। বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন এ আবেদনের সঙ্গে যুক্ত করা হয়েছে। ওই গম মানুষের খাবার উপযোগী কি না, তা দেশের মাননিয়ন্ত্রণ সংস্থা (বিএসটিআই) ও কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বারি) মাধ্যমে পরীক্ষা করাতে আদালতের কাছে নির্দেশনা চাওয়া হয়।