ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৬:২৯ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ২০শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

বিক্ষোভ-সংঘর্ষে চলছে হরতাল

বিক্ষিপ্ত বিক্ষোভ মিছিল-পিকেটিং ও সংঘর্ষে রাজধানীসহ সারাদেশে চলছে ২০ দলীয় জোটের সকাল-সন্ধ্যা হরতাল। হরতালের শুরুতে সকাল ১০টার দিকে নোয়াখালীতে গাড়িতে পিকেটারদের ছোড়া ইটের আঘাতে এক স্কুল শিক্ষিকা নিহত হয়েছেন।
গাজীপুরে বিএনপি চেয়ারপার্সনের সমাবেশস্থলে ১৪৪ ধারা জারির প্রতিবাদ ও বিএনপিসহ জোটের শীর্ষ নেতাদের মুক্তির দাবিতে গত শনিবার ২০ দলীয় জোট এ হরতাল আহ্বান করে।
সোমবার সকালে হরতালের শুরুতে রাজধানীর মিরপুর, খিলগাঁওয়ে পুলিশের সাথে সংঘর্ষ হয়েছে বিএনপি জামায়াত কর্মীদের। মালিবাগে জামায়াত-শিবিরের মিছিলে হামলা চালিয়েছে আওয়ামী লীগ। এসময় পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে জামায়াত কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ৪ জনকে আটক করেছে বলে স্থানীয়রা জানায়।
এছাড়া চট্টগ্রামের মেহেদিবাগে হরতালের সমর্থনে মিছিলে পুলিশের বাধাকে কেন্দ্র করে  সংঘর্ষ হয়েছে। এসময় অন্তত ১০টি যানবাহন ভাংচুর করে পিকেটাররা।পুলিশ ৭জনকে আটক করেছে বলে দাবি করেছে বিএনপি। অপরদিকে রাজশাহী মহানগরের বিভিন্ন এলাকায়ও হরতাল সমর্থকদের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়েছে পুলিশের। এসময় বেশ কয়েকজন আটক করা হয়েছে।

হরতালকে ঘিরে রাজধানীতে আইন-শৃঙ্খলাবাহিনী ব্যাপক নিরাপত্তা বেষ্টনি গড়ে তুলেছে। প্রতিটি মোড়ে মোড়ে অতিরিক্ত পুলিশি সতর্ক প্রহরা রয়েছে। এছাড়া বিজিবিসহ র‌্যাব-পুলিশের টহল জোরদার করা হয়েছে।
আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর এমন তৎপরতার মধ্যেও বিএনপি ও জামায়াত কর্মীরা রাজধানীর খিলগাঁও, পল্টন, মিরপুর, মগবাজার, মালিবাগসহ বেশ কয়েকটি স্থানে মিছিল করেছে। মিরপুরের পল্লবি এলাকায় মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করলে বিএনপি-জামায়াত কর্মীদের সাথে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। পুলিশের গুলিতে গুরুতর আহত একজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এছাড়া খিলগাঁওয়ে শিবিরের মিছিলে রাবার বুলেট নিক্ষেপ করেছে পুলিশ। এসময় উভয় পক্ষে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে শিবির কর্মী সন্দেহে পুলিশ দুজনকে আটক করে। এদিকে পল্টন এলাকা থেকে সকাল ৯টার দিকে সন্দেহভাজন দুই পথচারীকে আটক করেছে পুলিশ।
মালিবাগে জামায়াত-শিবিরের মিছিলে হামলা চালিয়েছে আওয়ামী লীগ। এসময় পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে জামায়াত কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ৪ জনকে আটক করেছে বলে স্থানীয়রা জানায়। তবে পুলিশ আটকের খবর অস্বীকার করেছে।
হরতালে রাজধানীতে ব্যক্তিগত যান চলাচল বন্ধ। কিছু গণপরিবহণ চলাচল করতে দেখা গেছে। ট্রেন ও লঞ্চ চলাচল স্বাভাবিক থাকলেও যাত্রী কম থাকায় নির্ধারিত সময়ের পরে ছেড়ে যেতে দেখা যায়।
এছাড়া গাবতলী, সায়েদাবাদ ও মহাখালী বাস স্ট্যান্ড থেকে দূরপাল্লার কোন বাস ছেড়ে যায়নি। একই সঙ্গে ঢাকায় দূরপাল্লার কোন বাস প্রবেশ করেনি।

এদিকে চট্টগ্রাম, রাজশাহী, কুমিল্লা, সাতক্ষীরা, নাটোর, কক্সবাজার, মানিকগঞ্জসহ বেশ কয়েকটি স্থানে হরতালের সমর্থনে মিছিলে পুলিশের ধাওয়ার ঘটনায় সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে।
নোয়াখালীতে হরতালে গাড়িতে পিকেটারদের ছোড়া ইটের আঘাতে এক স্কুল শিক্ষিকা নিহত হয়েছেন। মাথায় ইটের আঘাতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে ঘটনাস্থলেই ওই শিক্ষিকা মারা যান।
কক্সবাজারে পিকেটিংকালে ছাত্রদলের ২ কর্মীকে আটক করে পুলিশ। পরে তাদের ৬ মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। সাতক্ষীরায় হরতালের আগের দিন রাতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে বিএনপি ও জামায়াতের ৮ জন, মানিকগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলায় অভিযান চালিয়ে ৫১ জনকে আটক করা হয়েছে।