ব্রেকিং নিউজ

রাত ১:৫৪ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত
আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতা এবং সাবেক মন্ত্রী প্রয়াত সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত , ফাইল ফটো

বিএনপি ৭২’র সংবিধান, মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু ও স্বাধীনতাকে সম্মান দিলে ঐক্য হতে পারে : সুরঞ্জিত

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত এমপি বলেছেন, বিএনপি বাহাত্তরের সংবিধান, মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু ও স্বাধীনতাকে সম্মান করলেই কেবল তাদের সাথে ঐক্য হতে পারে।
বাহাত্তরের সংবিধানের বাইরে গিয়ে কোন জাতীয় ঐক্য হতে পারে না উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, গণতান্ত্রিক শক্তির সাথে উগ্র সাম্প্রদায়িক শক্তির কখনো কোন ঐক্য হতে পারে না।
আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সভাপতি সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত আজ দুপুরে রাজধানীর পুরানা পল্টনস্থ মুক্তিভবনের মৈত্রী মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের উদ্যোগে আয়োজিত ‘বেগম খালেদা জিয়ার রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে কথা বলা, পৌরসভা নির্বাচন ও বিএনপির রাজনীতি’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
জোটের সহ-সভাপতি মোবারক আলী শিকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ড. আকতারুজ্জামান ও হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট রানা দাসগুপ্ত।
সুরঞ্জিত বলেন, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ভাবে স্বীকৃত মহান মুক্তিযুদ্ধের শহীদের সংখ্যা নিয়ে মন্তব্য করবেন আবার রাজনীতি করবেন সেটা হতে পারে না। কেননা এ ধরনের মন্তব্যের অর্থ হলো মহান মুক্তিযুদ্ধকে বিতর্কিত করা।
পৌরসভা নির্বাচন সর্ম্পকে তিনি বলেন, বিএনপি পৌরসভা নির্বাচনে অংশ গ্রহন করেছে ভালো কথা। তবে নির্বাচনে অংশ গ্রহনের সাথে রাজধানীর মিরপুরে বিপুল পরিমান অস্ত্র উদ্ধার ও রাজশাহীর বাগমারায় আহমাদিয়া সম্প্রদায়ের মসজিদে হামলার দায় বেগম জিয়াকে গ্রহণ করতে হবে।
সুরঞ্জিত বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার রাজনীতিতে অবিসংবাদিত নেত্রী হলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি শুধু দেশের নয় দক্ষিণ এশিয়ার রাজনীতিকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবেন।
আগামী জাতীয় নির্বাচন সম্পর্কে তিনি বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচন যথাসময়ে হবে। বিপুল ভোটে সে নির্বাচনেও আওয়ামী লীগ বিজয়ী হবে। আর বিএনপির অপরাজনীতি আবারো পরাজিত হবে।
এডভোকেট রানা দাস গুপ্ত বলেন, বেগম খালেদা জিয়া মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদেও সংখ্যা নিয়ে করা মন্তব্যের জন্য সরকার তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহীতার মামলা করতে পারে।
তিনি বলেন, সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনীতে এ ক্ষমতা সরকারকে প্রদান করা হয়েছে। আর ইতিহাস বিকৃতির জন্য বেগম জিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন না করলে পরবর্তী প্রজম্মেও কাছে আওয়ামী লীগ তার দায় এড়াতে পারবে না।