Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৬:০১ ঢাকা, সোমবার  ১০ই ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

“বিএনপি সরকার গঠন করবে”

বিএনপির ৩৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রাজধানীর শেরে বাংলার চন্দ্রিমা উদ্যানে দলটির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন চেয়ারাপারসন বেগম খালেদা জিয়া। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় নেতাকর্মীদের নিয়ে শ্রদ্ধা জানান তিনি। এরপর সমাধিস্থলে সুরা ফাতেহা পাঠ ও দোয়া মোনাজাত করা হয়।

এর আগে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে শ্রদ্ধা জানাতে হাজার হাজার নেতাকর্মীদের ঢল নামে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়ার সমাধিস্থলে। এসময় তারা প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী, জিয়াউর রহমান এবং খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানকে নিয়ে বিভিন্ন স্লোগানে মুখরিত করে তুলেন ।

এদিকে জিয়ারউর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা জানানোর পর দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, খুব শিগগিরই জাতীয় সংসদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বিএনপি ওই নির্বাচনে জনগণের বিপুল ম্যান্ডেট পেয়ে সরকার গঠন করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

বিএনপির এই প্রভাবশালী নেতা আরো বলেন, তার দল ক্ষমতায় আসলে বিচার বিভাগ, পুলিশ ও প্রশাসনকে দলীয় প্রভাবমুক্ত করা হবে। সুষ্ঠূ ধারার গণতান্ত্রিক রাজনীতির পরিবেশ গড়ে তুলবে।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মেজর জেনারেল (অব.) মাহবুবু রহমান, নজরুল ইসলাম খান, এম এ হান্নান শাহ, ভাইস প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ আল নোমান, য়ুবদল সভাপতি আমান উল্লাহ আমান প্রমূখ।

বিগত বছরগুলোর চেয়ে দলটির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালনের চিত্র একটু ভিন্ন। অন্যান্য বছরে রক্তদান কর্মসূচি ও দোয়া মাহফিলের জন্য মঞ্চ তেরি করা হলেও এবার তা করা হয়নি। কেন করা হয়নি এ বিষয়ে গতকাল সোমবার বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন অভিযোগ করে বলেছিলেন, প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে শহীদ জিয়ার সমাধিস্থলে দলের পক্ষ থেকে একটি মঞ্চ তৈরির উদ্যোগ নেয়া হয়েছিল। কিন্তু আইন শৃঙ্খলার বাহিনীর সদস্যরা সেখানে বাধা সৃষ্টি করে এবং মঞ্চ তৈরির জন্য বাঁশ, লাঠি ও চেয়ার ভেঙ্গে দেয়। অবশ্য মঙ্গলবার সকালে সরেজমিনে মঞ্চ তৈরির কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি।

এদিকে সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজার হাজার নেতাকর্মী জিয়ার সমাধিতে উপস্থিত হয়েছেন। দলটির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানকে শ্রদ্ধা জানাতে তারাও অংশ নিয়েছেন এ আয়োজনে।
এ উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা চন্দ্রিমা উদ্যানের আশপাশে নিরাপত্তা বলয় গড়ে তুলেছেন।