ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৯:০৪ ঢাকা, শুক্রবার  ২০শে এপ্রিল ২০১৮ ইং

ওবায়দুল কাদের
সিলেটে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

‘বিএনপি শেখ হাসিনাকে বিদায় করতে পারলে খুশি’ – সেতুমন্ত্রী

বিএনপি শেখ হাসিনাকে দুনিয়া থেকে বিদায় করতে পারলে খুশি বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার সিলেটের ঐতিহাসিক রেজিস্ট্রারি মাঠে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত সদস্য নবায়ন কর্মসূচির কর্মিসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, বিএনপি আওয়ামী লীগকে চায় না, তারা শেখ হাসিনাকে দুনিয়া থেকে বিদায় করতে পারলেই খুশি।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে আওয়ামী লীগের ভোট বেড়েছে মন্তব্য করে কাদের বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে আওয়ামী লীগের ভোট বেড়েছে, অন্যদিকে বিএনপির ভোট ব্যাংকে ভাটা পড়েছে।

তিনি বলেন, বিএনপি মনে করেছিল রোহিঙ্গা সংকট শেখ হাসিনাকে বিপদে ফেলবে। এখন দেখা গেছে বাংলাদেশের ভোটাররা রোহিঙ্গা সংকটে শেখ হাসিনার মানবিক আবেদন দেখে বিমোহিত। ভোট আগে যা ছিল এখন তার অনেকগুণ বেড়ে গেছে।

বৃষ্টির মধ্যেই সিলেট রেজিস্ট্রারি মাঠে সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন অভিযানের উদ্বোধন করেন ওবায়দুল কাদের। এ সময় নেতাকর্মীদের মধ্যে তাড়াহুড়া ও বিশৃংখলা দেখা দিলে ক্ষিপ্ত হন সেতুমন্ত্রী। তিনি স্লোগান থামানোর নির্দেশ দিয়ে বলেন, চামচামি করে আওয়ামী লীগে সুবিধা পাওয়া যাবে না। এরকম চামচামি অনেক দেখেছি। অন্তত আমাকে চামচামি করে খুশি করা যাবে না।

কাদের বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় যাওয়ার রঙিন স্বপ্ন দেখছে। কিছুদিন তারা প্রধান বিচারপতিকে নিয়ে খেলা খেলেছে, তারপর এখন শুরু সিইসিকে নিয়ে। সিইসির এক বক্তব্যে তারা মহাখুশি। ফখরুল সাহেব বলেছিলেন ১০০ বছরেও নাকি আমাদের ক্ষমতায় আসতে দেবেন না। লন্ডনে বসে বসে ক্ষমতায় যাওয়ার নীল নকশা ইনশাল্লাহ বাংলাদেশে সফল হবে না। ২০০১ সালের পুনরাবৃত্তি আর বাংলাদেশে হবে না।

সিলেটে সাম্প্রতিক সময় ছাত্রলীগের কোন্দলে দুটি খুনেরও বিচার হবে ঘোষণা দিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, শেখ হাসিনার নির্দেশ খুনি যেই হোক, তার রেহাই নেই। মঞ্চে আছেন রেহাই নেই। নেপথ্যে আছেন রেহাই নেই। যত প্রভাবশালী হোক দলকে রক্তাক্ত করার অধিকার কারও নেই। এই দুটি খুনের বিচার অবশ্যই হবে।

সিলেট সিটিতে মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন নিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, সিলেটের মানুষের কাছে যিনি সবচেয়ে গ্রহণযোগ্য তাকে মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হবে। আমরা প্রার্থীদের খবর নিচ্ছি, বিরোধীদেরও খবর নিচ্ছি। মনোনয়ন নিয়ে নিজেদের মধ্যে ঝগড়া-ঝাটি করা যাবে না। মনে রাখতে হবে, আমাদের প্রতীক হচ্ছে নৌকা, আমাদের সবাইকে নৌকার জন্য কাজ করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, সংসদ নির্বাচনেও আমরা একইভাবে প্রার্থী মনোনয়ন দেব। জনগণের কাছে যিনি অধিকতর গ্রহণযোগ্য তিনিই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাবেন।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য ও সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের সভাপতিত্বে ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরীর সঞ্চালনায় আয়োজিত এ কর্মিসভায় বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ ও সদস্য অধ্যাপক রফিকুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান।