Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১১:৪৩ ঢাকা, শনিবার  ১৭ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

ওবায়দুল কাদের
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের

‘বিএনপি শুধু তারিখ পাল্টায় কিন্তু মাঠে নামে না’- কাদের

বিএনপির আন্দোলনের হুমকি ধামকির বিষয়ে ইঙ্গিত করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি শুধু মাঠে নামার তারিখ পাল্টায় কিন্তু মাঠে নামে না। কেন্দ্রীয় ৫৮৬ নেতাও যদি মাঠে থাকতো বলতাম বিএনপি মাঠে আছে।

শুক্রবার সকালে উত্তরাঞ্চলে সফরের শুরুতে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিমপাড় সংযোগ মহাসড়কের কড্ডা মোড়ে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত পথসভায় ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, তারা (বিএনপি নেতারা) শুধু বলে কোরবানির পরে, পরীক্ষার পরে, এ বছর নয়, সামনের বছর আন্দোলনের জন্য মাঠে নামব। কিন্তু মাঠে নামে না। যদি তাদের কেন্দ্রীয় কমিটির ৫৮৬ জনও মাঠে নামতো তবুও বলতাম তারা মাঠে আছে। বিএনপি ঘরে বসে শুধু নালিশ করে। বিএনপি এখন নালিশ পার্টিতে পরিণত হয়েছে। বিএনপি জনগণকে শান্তিতে থাকতে দিতে চায়না তাই জনগণ তাদের রাজনীতি প্রত্যাখ্যান করেছে। বিএনপির মরা গাঙে আন্দোলনের জোয়ার আর কোন দিনই আসবে না।

তিনি নিজ দল সম্পর্কে বলেন, ত্যাগীদের মূল্যায়ন করতে হবে, ভদ্র ও শিক্ষিত লোকদের দিয়ে কমিটি করতে হবে। যারা অভিমান করে দূরে সরে গেছে তাদের দলে ফিরিয়ে আনতে হবে। তাহলেই আগামীতে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনা সম্ভব হবে।

এসময় জেলার সকল কমিটি পূর্ণাঙ্গ করার ওপর গুরুত্বারোপ করে নিজের পছন্দের লোককে নয়, দলের ত্যাগী ও পরীক্ষিতদের দিয়ে কমিটি করার তাগিদ দেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, পকেট কমিটি না করে, নিজ নিজ এলাকায় গিয়ে ত্যাগীদের দিয়ে কমিটি গঠন করুন। মনে রাখবেন, বাগানের ফুল শুকিয়ে যায় কিন্ত ভালবাসার ফুল কখনও শুকায় না। তাই কর্মীদের ভালবাসা আদায়ের চেষ্টা করুন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার দেশের খাদ্য ঘাটতি পূরণ করে বিদেশে খাদ্য রফতানি করে চলছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে গত তিন বছরে যে উন্নয়ন হয়েছে তা বিগত ২৫ বছরেও সম্ভব হয়নি। তাই আসুন অন্য কাউকে নয়, শেখ হাসিনাকে নেতা মেনে তার নেতৃত্বে দল করি। তাহলেই দল ও দেশের ভালো হবে, দেশও এগিয়ে যাবে, উন্নয়নও হবে।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাবেক মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রী, নব নির্বাচিত জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, সিরাজগঞ্জ-কামারখন্দ-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডা: হাবিবে মিল্লাত মুন্নাসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি , বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম,আওয়ামী লীগ রাজশাহী বিভাগের দায়িত্ব প্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ রংপুর বিভাগের দায়িত্ব প্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজ্জাম্মেল হক, সিরাজগঞ্জ-পাবনা সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য সেলিনা বেগম স্বপ্না, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেন প্রমুখ।