ব্রেকিং নিউজ

ভোর ৫:৪৯ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

বিএনপি শান্তিপূর্ণ মিছিল-সমাবেশে করতে চাইলে কেউ বাধা দেবে না

Like & Share করে অন্যকে জানার সুযোগ দিতে পারেন। দ্রুত সংবাদ পেতে sheershamedia.com এর Page এ Like দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকতে পারেন।

 

আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এবং কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, বিএনপি সন্ত্রাস ছেড়ে জনগনের কাছে ক্ষমা চেয়ে শান্তিপূর্ণ মিছিল-সমাবেশ করতে চাইলে কেউ বাধা দেবে না।
আজ সোমবার বিকেলে উত্তরার আজমপুরে এক বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। বিএনপি-জামায়াতের হরতাল-অবরোধের নামে মানুষ পুুড়িয়ে হত্যার প্রতিবাদের কেন্দ্রীয় ১৪ দলের পক্ষ থেকে এই সমাবেশের আয়োজন করা হয়।
আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এডভোকেট সাহারা খাতুনের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এম এ আজিজ, সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, ১৪ দলের নেতা এসকে শিকদার, শাহাদাত হোসেন প্রমুখ ।
মোহাম্মদ নাসিম বেগম জিয়াকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘ক্ষমা চেয়ে গণতন্ত্রের পথে আসুন। শান্তিপূর্ণ মিছিল করুন কেউ বাধা দেবে না। নির্বাচন চাইলে ২০১৯ সালে হবে, সেটা সংবিধার অনুসাড়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনেই হবে। আপনাদের সঙ্গে সংলাপের কোনো প্রশ্নই আসে না। খুনির সঙ্গে কোনো সংলাপ হবে না।
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী বলেন, বেগম খালেদা জিয়া এখন জঙ্গীর নেত্রী, মানুষ মারার নেত্রী। আমরা যখন আন্দোলন করতাম, তখন রাজপথে নির্যাতিত হয়েছি, নিজেরা মার খেয়েছি। মানুষের উপর নির্যাতন করিনি। আজকে মানুষের উপর নির্যতন করছে বিএনপি। বিএনপি নেতারা মাঠে নেই। অথচ বার্ন ইউনিট মানুষের কান্নায় ভরে গেছে। হরতালের নামে গাড়ী ও মানুষকে পুড়িয়ে মারা হচ্ছে।
রাশেদ খান মেনন বলেন, সংলাপ এখন খারাপ শব্দ হয়ে গেছে। ১/১১ সময়ে যারা সংলাপের কথা বলেছেন, তাদের লক্ষ্য ছিল; দুইনেত্রীকে মাইনাস করা। আজকেও আবার নতুন করে সেই সংলাপেরই কথা উঠেছে। এটা পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় যাওয়ার ষড়যন্ত্র। যত ষড়যন্ত্র হোক না কেন, কেউ পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় যেতে পারবেন না।
তথাকথিত বুদ্ধিজীবীদের সমালোচনা করে তিনি বলেন, বিএনপি রাজনীতির মাঠে হেরে গিয়ে এখন বিশিষ্ট ব্যাক্তি আর বুদ্ধিজীবীদের মাঠে নামিয়েছেন। যারা বিশেষ সময়ে সুবিধে লুটে। তারা এখন সংলাপের কথা বলেছে। সন্ত্রাস ছেড়ে গণতন্ত্রের পথে আসলেই আপনাদের (বিএনপি) সঙ্গে আলোচনা সম্ভব হতে পারে বলেও জানান মেনন।
মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেন, সন্ত্রাসীদেও ধরে গণধোলাই দেয়া শুরু হয়ে গেছে। বোমাবাজ দের যেখানেই পাওয়া যাবে, ধোলাই দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয়ার আহ্বান জানান তিনি। সন্ত্রাসীদের বাংলার মাটিতে কোন স্থান হবে না।