Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১১:৪৭ ঢাকা, বুধবার  ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

বিএনপি
আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বিপুল ভোটে বিজয় লাভ করেছেন।

‘বিএনপি প্রার্থীর ব্যাপক ভরাডুবি’

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীর ব্যাপক ভরাডুবি হয়েছে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বিপুল ভোটে বিজয় লাভ করেছেন।

বৃহস্পতিবার শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত এ নির্বাচনে আইভী বিএনপির প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খানকে প্রায় ৭৯ হাজার ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করেন।

মোট ১৭৪টি কেন্দ্রে ভোট অনুষ্ঠিত হয়। নৌকা প্রতীক নিয়ে সেলিনা হায়াৎ আইভী পেয়েছেন ১,৭৫,৬১১ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে সাখাওয়াত হোসেন খান পেয়েছেন ৯৬,০৪৪ ভোট।

বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত একটানা নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলে। কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়।

দলীয় প্রতীকে এই সিটি কর্পোরেশনে প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সিটি কর্পোরেশন হিসেবে নারায়ণগঞ্জের প্রথম নির্বাচনেও জয়লাভ করেন আইভী। অবশ্য ওই নির্বাচনে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন।

এবার নাসিক নির্বাচনে মোট ৪ লাখ ৭৪ হাজার ৯৩১ জন ভোটার ছিল। তাদের মধ্যে ২ লাখ ৩৯ হাজার ৬৬২ জন পুরুষ আর ২ লাখ ৩৫ হাজার ২৬৯ জন নারী ভোটার ছিলেন।

এবারের নির্বাচনে মোট ২০১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। মেয়র পদে লড়াই করেন সাতজন। আর ২৭টি কাউন্সিলর পদে ১৫৬ জন এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলরের ৯টি পদে ৩৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

উল্লেখ্য, ভোট চলাকালীন সময়ে উভয় পক্ষ কোনপ্রকার অনিয়মের অভিযোগ করতে না পারলেও তবে বৃহস্পতিবার রাতে নারায়ণগঞ্জ শহরে নিজ বাসভবনে সংক্ষিপ্ত সংবাদ সম্মেলনে নাসিক নির্বাচনে অদৃশ্য অনিয়ম হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান।

ব্যাপক ভরাডুবির পরে তিনি বলেন, এই নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণ ভোটাধিকার ফিরে পেয়েছে। তবে নির্বাচনে অদৃশ্য অনিয়ম হয়েছে। ভোট গণনায় গণ্ডগোল আছে।

 

নাসিক নির্বাচন নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ