ব্রেকিং নিউজ

রাত ১১:৩২ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

বিএনপি-জামায়াত জঙ্গি সংগঠন : শেখ সেলিম

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম এমপি বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত কোন রাজনৈতিক দল নয়, ওরা জঙ্গি সংগঠন।
তিনি বলেন, ‘ওরা পেট্রোল বোমা মেরে এদেশে গণতন্ত্র আনতে চায়। এদেশের মানুষ জনগনের গণতন্ত্র চায়, খালেদা জিয়ার স্বামী সামরিক শাসক জিয়ার সামরিক গণতন্ত্র চায় না।’
শেখ সেলিম রোববার গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলা পরিষদ চত্বরে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন।
শেখ সেলিম বলেন, গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত সরকারের অধীনেই দেশে আগামীর নির্বাচন হবে। তাই আগামী নির্বাচন শেখ হাসিনার অধীনেই হবে।
তিনি বিএনপি’র বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন- ৫ জানুয়ারী নির্বাচনের আগে আপনারা নির্বাচন বাঞ্চালের নামে স্কুল পুড়িয়েছেন, শিক্ষক মেরেছেন। কিন্তু আপনারা নির্বাচন বাঞ্চাল করতে পারেনি। কারণ আপনারা দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি করে যুদ্ধাপারাধীদের বাঁচাতে চেয়েছিলেন।
জনগণ যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চায় বলেই ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে জয়ী করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, জনগণই হলো আওয়ামী লীগের মূল শক্তি।
কোটালীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট সুভাষ চন্দ্র জয়ধর এর সভাপতিত্বে সম্মেলনে আরো বক্তৃতা করেন- আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ ও জাহাঙ্গির কবির নানক এমপি, উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদ, আওয়ামী লীগের ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, আফম বাহাউদ্দিন নাসিম এমপি, বিএম মোজাম্মেল হক এমপি, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মুহাম্মদ ফারুক খান এমপি, আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, কৃষি ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি, উম্মে রাজিয়া কাজল এমপি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য আব্দুর রহমান এমপি, এনামুল হক শামীম, এস এম কামাল হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী এমদাদুল হক, সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক লিয়াকত আলী মোল্লা প্রমুখ।
শেখ সেলিম খালেদা জিয়ার সংলাপের আগ্রহ প্রকাশ সম্পর্কে বলেন, কার সাথে সংলাপ, জঙ্গিদের সাথে সংলাপ হয় না। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হয়।
মাহবুব উল আলম হানিফ এমপি বলেন, খালেদা জিয়া লন্ডনে বসে আবারও ষড়যন্ত্র শুরু করেছেন। তিনি লন্ডনে বসে বলেছেন দেশের পরিস্থিতি অস্বাভাবিক হয়েছে, তাই সংলাপের আহবান জানিয়েছেন। আওয়ামী লীগ গনতান্ত্রিক দল। শেখ হাসিনা তো সংলাপ করার জন্য অনেক বার আহবান জানিয়েছিলেন। খালেদা জিয়া আসলেন না। আর এখন কোন খুনির সাথে সংলাপ হতে পারে না।
খালেদা জিয়া এখন দ্বিমুখিনীতি গ্রহণ করেছেন মন্তব্য করে হানিফ বলেন, তারা সংলাপ চায় আবার বিদেশী ও পুলিশ হত্যা করে দেশে অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চায়।
তিনি আলাপ-আলোচনা-সংলাপের পূর্বে বেগম জিয়াকে যুদ্ধাপরাধীদের সঙ্গ ত্যাগ করে গুপ্তহত্যা বন্ধের আহবান জানান।
সম্মেলনে সাবেক সভাপতি এ্যাডভোকেট সুভাষ চন্দ্র জয়ধরকে সভাপতি ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম হুমায়ুন কবিরকে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ঘোষণা করা হয়। কমিটির অন্যান্য নেতাদের নাম পরে ঘোষণা করা হবে বলে জানানো হয়।