Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৯:১০ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

‘বিএনপি আমলে জনগণের অবস্থার অবনতি হয়’ -প্রধানমন্ত্রী

দেশে গণতন্ত্রের সুস্থ ধারাবাহিকতা বজায় রাখার ওপর গুরুত্বারোপ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রক্ষমতায় থাকলে দেশ আরো এগিয়ে যাবে। বিএনপি যখন ক্ষমতায় আসে জনগণের অবস্থা উন্নয়নের পরিবর্তে অবনতি হয়।

যুব মহিলা লীগের ১৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, আমরা বাংলাদেশে গণতন্ত্রের সুস্থ ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে চাই। এতে দেশ সামনের দিকে এগিয়ে যাবে। আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা আজ বিকেলে গণভবনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ যদি রাষ্ট্রক্ষমতায় থাকে বাংলাদেশ উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাবে এবং ক্ষমতার ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে।

যুব মহিলা লীগের সভাপতি নাজমা আক্তারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক অপু উকিলও বক্তৃতা করেন।

এর আগে যুব মহিলা লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এবং সংগঠনের ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ শাখার নেতৃবৃন্দ প্রধানন্ত্রীকে ফুলের তোড়া উপহার দেন।

দেশে প্রকৃত উন্নয়নের কথা উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, তাঁর দল অন্তরের টানে এবং জনগণের কল্যাণে কাজ করে। কিন্তু ক্ষমতার ধারাবাহিকতা না থাকলে প্রকৃত উন্নয়ন সম্ভব নয়।

তিনি বলেন, ‘আমাদের রাজনীতির প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে শোষিত, বঞ্চিত শ্রমিক শ্রেণীর ভাগ্য পরিবর্তন।’ অন্যদিকে বিএনপি যখন ক্ষমতায় আসে জনগণের অবস্থা উন্নয়নের পরিবর্তে অবনতি হয়। জনগণের মৌলিক অধিকার এবং দেশে শান্তি থাকে না। এটি এখন জনগণের কাছে পরিষ্কার।

শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি যখন ক্ষমতায় ছিল তখন তারা কোন নিয়ম-কানুন মানতে চায়নি। তারা যখন সংসদে বিরোধী দলে ছিল তখন তাদের সংসদ সদস্যরা অশ্লীল ভাষা ব্যবহার করতেন।

সংসদ নেতা শেখ হাসিনা বলেন, বর্তমানে বিরোধী দল সংসদে বিএনপির মতো অশ্লীল ভাষা ব্যবহার করে না। এর ফলে সংসদ সম্পর্কে জনগণের মনে যে নেতিবাচক মনোভাব সৃষ্টি হয়েছিল তার পরিবর্তন হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে সংসদে গঠনমূলক আলোচনা হয় এবং সংবিধান অনুযায়ী যে কোন বিলের ওপর শোভন কথাবার্তা হয়। দেশের জনগণ এর সুফল পাচ্ছে।

বিভিন্ন ক্ষেত্রে সরকারের চমৎকার সাফল্যের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিনি সবসময়ই ক্ষমতাকে উপভোগ নয়, দায়িত্ব পালন ও জনগণের সেবার সুযোগ হিসেবে দেখেন। তিনি বলেন, ‘আমরা ক্ষমতায় আসি জনগণের সেবক ও খাদেম হিসেবে কাজ করতে।’

নারীর ক্ষমতায়ন এবং তাদের অধিকার ও অংশগ্রহণ নিশ্চিতকরণে তাঁর সরকারের বিভিন্ন সাফল্যের বর্ণনা দিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি এসব সাফল্য জনগণের সামনে তুলে ধরতে কাজ করার জন্য যুব মহিলা লীগের নেতা-কর্মীদের নির্দেশ দেন।

তিনি বলেন, এসব সাফল্যের কথা জনগণকে জানানো উচিত। প্রধানমন্ত্রী দেশে বিভিন্ন আন্দোলনে যুব মহিলা লীগ নেতাদের সাহসী ভূমিকার প্রশংসা করেন এবং এজন্য তাদের অভিনন্দন জানান।

তিনি ২০০১ সাল থেকে বিএনপি-জামায়াতের পাঁচ বছরের শাসনামলে এই সংগঠনের নেতা-কর্মীদের ওপর অমানবিক নির্যাতন ও নিপীড়নের কথা স্মরণ করেন। তিনি সংগঠনকে শক্তিশালী করার জন্য যুব মহিলা লীগের নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান।