ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৪:৪৬ ঢাকা, মঙ্গলবার  ১৬ই অক্টোবর ২০১৮ ইং

বিএনপি অফিসে হামলা ও সংঘর্ষের পরে বিক্ষোভ কর্মসূচি স্থগিত। হামলাকারীরা আওয়ামী লীগের লোক এবং সরকারই এ ঘটনা সাজিয়েছে বললেন-সভাপতি রাজীব

শীর্ষ মিডিয়া ১৯ অক্টোবর ঃ  বিএনপির ছাত্র সংগঠন ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে দ্বন্ধের জের ধরে আজ বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।  এ সময় দু পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে কয়েকজন আহত হয়েছে। তবে ছাত্র দলের নতুন কমিটির সভাপতি রাজীব আহসান বলেছেন,  হামলাকারীরা ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের লোক এবং সরকারই এ ঘটনা সাজিয়েছে।   তবে বিদ্রোহী গ্রুপের ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ন সম্পাদক শামসুজ্জোহা সুমন বলেন, এটা স্পষ্টতই তাদের ক্ষোভের বহিপ্রকাশ। এখানে বাইরের কোনও হস্তক্ষেপ নেই।  ছাত্রদলের পদবঞ্চিতরা নতুন কমিটির বিরুদ্ধে করা বিক্ষোভ কর্মসূচি স্থগিত করার ঘোষণা দিয়েছেন। আজ সন্ধ্যায় বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর-এর সঙ্গে বৈঠক শেষে ছাত্রদলের পদবঞ্চিতরা এ সিদ্ধান্ত নেয়।
 
গত মঙ্গলবার রাতে বিএনপির পক্ষ থেকে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণার পর থেকেই ২০১ সদস্যের এ কমিটিতে স্থান না পাওয়া নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ করে আসছিলো। এর ধারাবাহিকতায় শনিবার বিক্ষোভকারীরা ঢাকার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ছাত্রদলের কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেয়। নব গঠিত কমিটি বিরোধী শ্লোগান দেয় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবের সামনেই।
আজ সকালে নতুন কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা তালা খুলে কার্যালয়ে প্রবেশ করে এবং সেখানে অবস্থান করতে থাকে , এর পর নতুন কমিটি ও বাদ পড়া নেতা কর্মীরা কার্যালয়ের দুদিকে অবস্থান নেয়। কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই পদ বঞ্চিত ক্ষুদ্ধ নেতা কর্মীরা বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে হামলা চালায়। এসময় দুটি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। দুপক্ষই পরস্পরের দিকে ইট পাটকেল ছুঁড়তে থাকে। প্রতিপক্ষের হাতে মারধরের শিকার হয়েছেন কয়েকজন। এ ঘটনায় কয়েকজন আহত হয়েছেন। বিক্ষোভকারীরা কার্যালয়ের ভেতরে ভাংচুর করে এবং বিএনপি মহাসচিবের পাশের কক্ষও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
দু পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের সময় কার্যালয়ের ভেতরেই ছিলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগির সহ কয়েকজন বিএনপি নেতা। তবে ছাত্র দলের নতুন কমিটির সভাপতি রাজীব আহসান বলেছেন, “হামলাকারীরা ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের লোক এবং সরকারই এ ঘটনা সাজিয়েছে।”
 
এদিকে, শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, বিএনপি কার্যালয়ে বিক্ষুব্ধ বিদ্রোহীদের নেতাদের সঙ্গে সমঝোতা বৈঠকে বসে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর পদ বঞ্চিতদের দাবিগুলো বিএনপি চেয়ারপার্সনের কাছে পৌঁছানোর আশ্বাস দিয়েছেন। ছাত্রদলের পদবঞ্চিতরা নতুন কমিটির বিরুদ্ধে করা বিক্ষোভ কর্মসূচি স্থগিত করার ঘোষণা দিয়েছেন। আজ সন্ধ্যায় বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর-এর সঙ্গে বৈঠক শেষে ছাত্রদলের পদবঞ্চিতরা এ সিদ্ধান্ত নেয়। বৈঠক শেষে রোববার সন্ধ্যায় ছাত্রদলের  (বিদ্রোহী) গাজী রেজওয়ানুল হক রিয়াজ  সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, আমাদের দাবি-দাওয়া দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবের কাছে তুলে ধরেছি। তিনি দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে বিষয়টি অবহিত করে সোমবারে এ বিষয়ে দলীয় সিদ্ধান্ত জানাবেন বলে জানিয়েছেন।   সিরাজ উদ্দিন রিয়াজ বলেন, দলের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানার পর পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।
 
গত ১৪ অক্টোবর রাতে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া রাজীব আহসানকে সভাপতি ও আকরামুল হাসানকে সাধারণ সম্পাদক করে গড়া নতুন কমিটির অনুমোদন দেন। এরপরই বিক্ষোভের সূচনা হয় সংগঠনটির নেতাকর্মীদের মধ্যে।  উল্লেখ্য , আজকের দুপক্ষের সংঘর্ষ চলাকালে পুলিশকে বিগত দিনের মতো সক্রিয় দেখা যায়নি, যা নিয়ে পল্টন এলাকাবাসীর মনে প্রশ্ন দেখা দেয়েছে।