ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:৫৮ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ১৯শে এপ্রিল ২০১৮ ইং

ওবায়দুল কাদের
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, ফাইল ফটো

“বিএনপির মিথ্যাচারের পরেও কাঙ্ক্ষিত বিজয় হবে আ’লীগের”

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন, আওয়ামী লীগের কাঙ্ক্ষিত বিজয়কে বিএনপি মিথ্যাচারের মাধ্যমে ঠেকাতে পারবে না। বিএনপির দুর্বলতার সবচেয়ে বড় প্রতীক হলো মিথ্যাচার। বিএনপি কারণে-অকারণে প্রেস ব্রিফিংয়ের নামে মিথ্যাচার করছে। আমরা তাদের মিথ্যাচার সম্পর্কে কিছু না বললেও জনগণ তা মেনে নেবে না।

ওবায়দুল কাদের আজ বিকেলে রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে আওয়ামী লীগের সম্পাদকমন্ডলীর সভা শেষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন।

এ সময় আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ, এডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, বিএম মোজাম্মেল হক, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, একেএম এনামুল হক শামীম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ফজিলাতুন্নেসা ইন্দিরা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর ও আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. শাম্মি আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য হলো সময় বুঝে ভারত বিরোধীতা ও ভারতপ্রীতি দেখানো।

তিনি বলেন, বিএনপির মনে ভারতবিরোধীতা থাকলেও নির্বাচনী বাতাসের জন্য আশীর্বাদ পেতে তাঁদের আচারণে ভারতপ্রীতির আলামত দেখা যাচ্ছে।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের শক্তির উৎস দেশের জনগণ। তারাই আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনবে। কোন বিদেশী শক্তি ক্ষমতায় বসাবে বিএনপির মতো চাতকের মতো আওয়ামী লীগ কখনও অপেক্ষা করবে না।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, সভায় দেশের সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক ও উপ-কমিটি গঠনের বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের প্রতিটি উপ-কমিটির সদস্য সচিবদের কাছে নাম প্রস্তাব করতে বলা হয়েছে। প্রস্তাবিত নামগুলো কেস-টু-কেস আলোচনা করে চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কাছে পাঠানো হবে।

বন্যা পরিস্থিতি সম্পর্কে তিনি বলেন, সরকারিভাবে ত্রাণ তৎপরতার পাশাপাশি দলীয়ভাবেও ত্রাণ তৎপরতা চালানো হচ্ছে। ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব তিনটি টিম ত্রাণ কার্যক্রম সম্পন্ন করেছে। বন্যা দুর্গত এলাকা মনিটরিং এবং তাঁদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য তিনি নেতা-কর্মীদের নির্দেশ দান করেন।

কাদের বলেন, আওয়ামী লীগের সদস্য সংগ্রহ অভিযানে প্রথম বারের মতো যারা ভোটার হচ্ছেন এবং নারী ভোটাদের ওপর সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে।

আগামী ১৬ জুলাই চট্টগ্রাম দক্ষিণ মহানগর এবং ২০ জুলাই ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সভা অনুষ্টিত হওয়ার কথাও জানান তিনি।

এর আগে ওবায়দুল কাদেরের সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগের সম্পাদকমন্ডলীর এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা পরিচালনা করেন মাহবুব-উল-আলম হানিফ।