Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১২:২০ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ২২শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

ওবায়দুল কাদের
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

বিএনপির ফাঁকা বুলির আন্দোলনটা কোন ঈদের পর-কোন বছর?

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, রোজার ঈদের পর সরকারের বিরুদ্ধে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আন্দোলনের হুমকি ফাঁকা বুলি ছাড়া আর কিছু নয়। আর তিনি জানতে চেয়েছেন, আন্দোলনটা কোন ঈদের পর-কোন বছর?

তিনি বলেন, জনগণকে ফাঁকা বুলি দিয়ে বিভ্রান্ত করবেন সেইদিন চলে গেছে বেগম জিয়ার। এই ধরনের ফাঁকা বুলি দিয়ে আওয়ামী লীগকে বিভ্রান্ত করা যাবে না।

ওবায়দুল কাদের আজ বাংলাদেশ প্রকৌশলী বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) অডিটরিয়ামে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের দুই দিন ব্যাপি বর্ধিত সভার উদ্ভোধন কালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

বর্ধিত সভায় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ ও ১০৯টি জেলা ইউনিটের সভাপতি-সম্পাদকরা বর্ধিত সভা ও প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অংশ গ্রহণ করছেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বিএনপি শান্তিপূর্ণ ভাবে আন্দোলন করবে এটা যদি সত্য হয়, তা আরব্য রজনীর রুপকথাতেও হয় না। বিএনপির আন্দোলনের আট বছরে ঈদের পর, কোরবানীর ঈদের পর, এস এস সি পরীক্ষার পর বলেই আসছে। আমরা জানতে চাই এইবারের আন্দোলন কোন ঈদের পর হবে। আর সেটা কোন বছর?

ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগের সভাপতিত্বে বর্ধিত সভায় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইসহাক আলী খান পান্না, সাবেক সভাপতি মাহমুদুল হাসান রিপন, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

‘হাসিনা মার্কা নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না’ বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার এমন বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, খালেদা জিয়া আপনাকে বলতে চাই, আপনি মনে হয় ইতিহাস ভুলে গেছেন। ১/১১ এর পটভূমি তৈরি করে কে অন্ধকারের দিকে জাতিকে ঠেলে দিতে চেয়েছিল। তার আগের পাঁচ বছর কি ঘটেছিল বাংলাদেশে, কেন ১৫ ফেব্রুয়ারী নির্বাচন সৃষ্টি করেছিলেন? আজকে বেগম খালেদা জিয়া আপনার কি মনে নেই সেই আজিজ মার্কা নির্ব্চানের কথা। আমরা কি সেই ইতিহাস ভুলে গেছি।

আগামী নির্বাচনকে নিয়ে বিদেশি কুটনৈতিকদের সমালোচনা করে তিনি বলেন, যে সকল কুটনৈতিকরা আমাদের দেশের আগামী নির্বাচন নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছে তাদের উদ্দেশ্যে আমি বলতে চাই। নিজ নিজ দেশের চেহারাটা আগে দেখুন, আয়নায় নিজেদের দেখুন, নিজ দেশ নিয়ে মাথা ঘামান। আগামী নির্বাচন ফ্রি এন্ড ফেয়ার হবে। আমাদের নির্বাচন নিয়ে আপনাদের মাথা ঘামানোর দরকার নেই।

নির্বাচন নিয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন অদ্ভুত দাবি করে আসছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আগামী নির্বাচন শেখ হাসিনার অধিনে হবে না, নির্বাচন হবে নির্বাচন কমিশনের অধিনে। শেখ হাসিনা সরকার নির্বাচন কমিশনকে নির্বাচন সুষ্ঠ ভাবে পরিচালনার জন্য সহায়তা করবে। পৃথিবীর কোথাও সহায়ক সরকারের কোন বিধান নাই। বিশ্বের অন্যান্য দেশে যেভাবে নির্বাচন হয় বাংলাদেশে একই ভাবে নির্বচান হবে। আর এ্ নিয়ে বিএনপি নেত্রী অদ্ভুত, উদ্ভট দাবি করে আসছেন।