Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১০:১৭ ঢাকা, বুধবার  ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

মির্জা ফখরুল
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ফাইল ফটো

‘বিএনপির প্রস্তাবকে বিতর্কিত করাই আ’লীগের লক্ষ্য ‘- ফখরুল

বিএনপি বিতর্কিত ব্যক্তিদের(কেএম হাসানের) নামের তালিকা নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে সংলাপে রাষ্ট্রপতিকে দিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতাদের এমন বক্তব্যের জবাবে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, যে নির্বাচন কমিশন বাংলাদেশে একটি সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে সক্ষম হবে। এবং দেশে যে বিভাজন আছে অনৈক্য আছে সেটা দূর করে একটা ঐক্য সৃষ্টি করতে পারবে। জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে পারে। সেরকম একটি প্রস্তাব বেগম জিয়া দিয়েছিলেন। কিন্তু যে দলটি আজ বিনা নির্বাচনে ক্ষমতা দখল করে বসে আছে তারা জানে যদি নির্বাচন সুষ্ঠু ও অবাধ হয়, তারা কোনোদিন ক্ষমতায় আসতে পারবে না। সেজন্যই তারা এটা চায় না, তাই তারা এটা বিতর্কিত করতে চায়। এমনকি মহামান্য রাষ্ট্রপতিকেও আওয়ামী লীগ বিতর্কিত করতে চায়। দুঃখ হয় যখন তাদের সিনিয়র নেতারা এ সম্পর্কে ভিন্ন ভিন্ন কথা বলেন। যার কোনো ভিত্তি নেই।

জিয়াউর রহমানের ৮১তম জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষ্যে সোমবার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম আয়োজিত এক আলোচনা সভার বক্তব্যে এসব মন্তব্য করেন মির্জা ফখরুল।

মির্জা ফখরুল গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে এগিয়ে নিতে নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে সংলাপের উদ্যোগ নেওয়ায় রাষ্ট্রপতিকে দলের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, বেগম জিয়া বলেছেন আসুন আমরা এমন একটি নির্বাচন কমিশন গঠন করি, যে নির্বাচন কমিশন বাংলাদেশে একটি সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে সক্ষম হবে। এবং দেশে যে বিভাজন আছে অনৈক্য আছে সেটা দূর করে একটা ঐক্য সৃষ্টি করতে পারবে। জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে পারে। সেরকম একটি প্রস্তাব তিনি দিয়েছিলেন। তার ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে। তারপরও আমরা ধন্যবাদ দেব মহামান্য রাষ্ট্রপতিকে তিনি সেই ডাকে সাড়া দিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন তাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। তিনি পার্লামেন্টে বলেছেন আমি দেখতে চাই গণতন্ত্র সকলকে নিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে চলেছে।

তিনি বলেন, হতাশাই শেষ কথা নয়। কখনো হতাশ হবেন না। বুকে বল নিয়ে আমাদের লক্ষ্যে এগিয়ে যেতে হবে। আমাদেরকে বিজয় অর্জন করতে হবে। আমাদের গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনতে হবে। বিএনপি লড়াই করছে ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য নয়, বাংলাদেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার অধিকার প্রতিষ্ঠা করার জন্য, মানুষের স্বাধীনতাকে প্রতিষ্ঠা করার জন্য। আসুন আমরা সে লক্ষ্যে সামনের দিকে এগিয়ে যাই।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। এতে আরও বক্তব্য রাখেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির মহাসচিব ও বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন, বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার প্রমুখ।