ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১২:২৯ ঢাকা, শুক্রবার  ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

বিএনপির নেতারাই হরতাল-অবরোধ মানছেন না

Like & Share করে অন্যকে জানার সুযোগ দিতে পারেন। দ্রুত সংবাদ পেতে sheershamedia.com এর Page এ Like দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকতে পারেন।

 

আওয়ামী লীগ সভাপতি মন্ডলীর সদস্য, ১৪ দলের মুখপাত্র ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, হরতাল-অবরোধ ডেকে বিএনপির নেতারাই তা মানছেন না।
তিনি বলেন, বিভিন্ন হাইকমিশনের অনুষ্ঠানে বিএনপির সিনিয়র নেতারা গাড়িতে করে যাচ্ছেন। হরতাল-অবরোধ মানলে তারা গাড়িতে না গিয়ে হেটে যেতেন। এতে প্রমাণ হয়, বিএনপি বড় বড় নেতারাই দলের কর্মসূচি মানেন না।
নাসিম আজ রোববার রাজধানীর তেজগাঁওয়ে কেন্দ্রীয় ঔষধাগারে দেশের বিভিন্ন স্থানে ১৯টি হাসপাতাল ও স্বাস্থ্যকেন্দ্রে এ্যাম্বুলেন্স বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. দীন মো. নুরুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বন ও পরিবেশ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি, কন্দ্রীয় ঔষধাগারের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল গোলাম রসুল প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
মোহাম্মদ নাসিম বলেন, হরতালÑঅবরোধ ডেকে দলের নেতারা গাড়িতে ঘুরে বেড়ান। অথচ সাধারণ মানুষ গাড়িতে যাতায়াত করলে পেট্রোল বোমা মেরে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।
জ্বালাও-পোড়াও করে সরকারের পতন ঘটানো যায় না উল্লেখ করে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, জ্বালাও-পোড়াও করে সরকারের পতন ঘটানো গেলে বিশ^ সভ্যতা বলে কিছু থাকতো না।
বিএনপির ডাকা হরতাল-অবরোধ কেউ মানছে না দাবি করে তিনি বলেন, মানুষ হরতাল-অবরোধ মানলে রাস্তায় রিকসা, সিএনজি ও বাস চলতো না, যানজট থাকতো না।
খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আপনি পেট্রোল বোমা মেরে স্বাস্থ্যবিভাগের একটি গাড়ি পোড়ালে আমি নতুন ১০টি গাড়ি দেব। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার ধ্বংসে নয় উন্নয়নে বিশ^াস করে।
আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বলেন, আন্দোলনের নামে পটকা, ককটেল ও পেট্রোল বোমা মারা হচ্ছে, এগুলো পুরানো অস্ত্র। মেশিনগান, কামান ও বন্দুকের মুখে যুদ্ধ করে যে জাতি স্বাধীনতা অর্জন করেছে, তাদের কাছে এগুলো কিছুই না।
অনুষ্ঠান শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী দেশের বিভিন্ন স্থানের ১৯টি জেলা ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জন্য দেয়া এ্যাম্বুলেন্সের চাবি স্থানীয় এমপি ও জনপ্রতিনিধিদের কাছে হস্তান্তর করেন।