ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৯:১৭ ঢাকা, বুধবার  ২৩শে মে ২০১৮ ইং

ওবায়দুল কাদের

বিএনপিকে ভাঙ্গতে বিএনপিই যথেষ্ট : কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি যেভাবে নেতিবাচক ও অগণতান্ত্রিক রাজনীতি আঁকড়ে ধরেছে তাতে ওই দলটির ভাঙ্গার জন্য আওয়ামী লীগের প্রয়োজন নেই, তারা নিজেরাই যথেষ্ট।

খালেদা জিয়ার দলীয় পদ রক্ষার জন্যই বিএনপি তাদের গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘বিএনপির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কোন দুর্নীতিবাজ ব্যক্তি দলটির সদস্য হতে পারে না। আর জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়া সাজাপ্রাপ্ত হলে দলের ভাঙ্গন দেখা দিতে পারে।। আর এ আশংকা থেকেই তারা তাদের গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করেছে।’

তিনি আজ বিকেলে রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ বঙ্গবন্ধু ভবনের সামনে ঢাকা-১০ আসনের আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্য সংগ্রহ ও সদস্য নবায়ন কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

স্থানীয় সংসদ সদস্য ব্যরিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত, সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ ও সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী মোর্শেদ কামাল।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি রাতের অন্ধকারে কলমের এক খোচায় তাদের গঠনতন্ত্রের ৭ ধারা নির্বাসনে পাঠিয়েছে। কি অদ্ভূত রাজনৈতিক দল দল বিএনপি, আর কি অদ্ভূত তাদের গঠনতন্ত্র। বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, যাদের ঘরেই গণতন্ত্র নেই, তারা দেশে কিভাবে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবে। এক বছর দশ মাসেও তাদের কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী কমিটির কোন সভা অনুষ্ঠিত হয়নি। তিনি বলেন, আদালতের রায়ের আগেই দন্ডিত হওয়ার ও দল ভেঙ্গে যাওয়ার ভয়ে বিএনপি তাদের গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করেছে। তিনি বলেন, মামলা হামলা সহ্য করে আওয়ামী লীগ দেশ স্বাধীন করেছে এবং আন্দোলনের মাধ্যমে বিএনপিকে পরাজিত করেছে। আর এখনও আওয়ামী লীগের মামলা হামলার ভয় নেই।

সেতুমন্ত্রী বলেন, মামলার ভয়ে বিএনপি গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করেছে। দন্ডিত হওয়ার ভয়ে তাদের গঠনতন্ত্র থেকে ৭ ধারা বিদায়। এটাই হচ্ছে বিএনপি। দেশের মানুষের সামনে তাদের মুখোশ উন্মোচন করা উচিত।

ওবায়দুল বলেন, দেশের বিচার বিভাগ স্বাধীনভাবে বিচার কার্যক্রম পরিচালনা করছে। সরকার আদালতের কোন কাজে কখনো হস্তক্ষেপ করে নি। আর সরকার হস্তক্ষেপ করলে সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীকে বাতিল করে রায় দিতে পারত না। তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলার রায় আদালতের বিষয়। তারপরও তারা আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আন্দোলন করার হুমকি দিচ্ছে। তারা সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে আদালতের বিরুদ্ধে আন্দোলনে যাচ্ছে।

নতুন সদস্য সংগ্রহের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, নতুন ভোটার ও নারী ভোটারদের নতুন সদস্য করার বিষয়ে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। কারণ তারাই আগামী নির্বাচনে যে কোন রাজনৈতিক দলের জয়-পরাজয়ে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।