ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৭:০৬ ঢাকা, বুধবার  ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

বালিকাদের মৃতদেহ কবর থেকে তুলে সংরক্ষণ করার নেশা

শীর্ষ মিডিয়া ২৭ অক্টোবর ঃ  মানুষের কত ধরনের নেশা থাকে। আর আনাতোলি মস্কভাইন এর নেশা কবর থেকে বালিকাদের মৃতদেহ তুলে সংরক্ষন করা। তিনি প্রায় ১৫০ জন বালিকার মৃতদেহ কবর থেকে তুলে নিজের কাছে একটি গোপন ঘরে মমি করে সংরক্ষন করে রাখতেন। এসব মমির আবার আলাদা আলাদা নামও দিতেন।

২০১১ সাথে গ্রেফতার হওয়া আনাতোলি মস্কভাইনকে মানসিক ভারস্যামহীন অভিহিত করে তার বিচারকাজ মুলতবি ঘোষণা করেছেন আদালত।

রাশিয়ার নিরাপত্তাকর্মীরা ২০১১ সালে কবর থেকে বালিকাদের মৃতদেহ তুলে নেওয়ার অপরাধে গ্রেফতার করে তাকে। আনাতোলি মস্কভাইন একজন ইতিহাসবিদ। মধ্য রাশিয়ার নিজনিহ নভগোরোদ এলাকায় তার বাড়ি। ওই বাড়িতে বালিকাদের মৃতদেহ মনি করে রাখতেন তিনি। শুধু তাই নয়, তার পছন্দ অনুযায়ী বালিকাদের মমির নাম রেখেছিলেন তিনি। তাদের জন্মদিনও পালন করতেন মস্কভাইন।

নিরাপত্তাকর্মীদের হাতে গ্রেফতার হওয়ার পর মস্কভাইন স্বীকার করেন, তিন থেকে ১২ বছর বয়সি বালিকাদের মৃতদেহ কবর থেকে তুলে এনে সংরক্ষণ করতেন তিনি। মনের মতো পোশাক পরিয়ে মমিগুলোকে সাজাতেন। পছন্দের মমিকে বিয়ের সাজে সাজাতেন।

মস্কভাইনের এই কর্মকাণ্ডকে বিভীষিকার সঙ্গে তুলনা করেছেন দেশটির আদালত। তিন বছর পর সম্প্রতি তাকে আদালতে তোলা হয়। কিন্তু এখনো তিনি মানসিক ভারসাম্যহীন বলে জানিয়েছেন আদালত। এ কারণে তার বিচারকাজ পরিচালনা সম্ভব নয়। তাকে ফের মনোরোগ বিশেষজ্ঞের কাছে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।