বাবার প্রশ্ন: সত্যিই কি আমি অভিজিৎ হত্যার বিচার পাবো?

অভিজিৎ রায় হত্যার এক বছর গত হলেও এখনো কোনো আসামিকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। এই অবস্থায় তার বাবা অধ্যাপক অজয় রায় ছেলে হত্যার বিচার পাওয়া নিয়ে সংশয়ের মধ্যে আছেন। বিবিসি বাংলাকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, একজন ক্ষতিগ্রস্ত পিতা হিসেবে বিচার নিয়ে তার আশার জায়গা ক্রমশ সংকুচিত হয়ে আসছে।
গত বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি রাতে অমর একুশে বইমেলা থেকে বের হওয়ার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির কাছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানসংলগ্ন ফুটপাতে খুন হন মুক্তমনা ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা ও লেখক প্রকৌশলী অভিজিৎ রায়। আহত হন তার স্ত্রী রাফিদা আহমেদ।
গত এক বছর ধরে ছেলের হত্যাকাণ্ডের বিচার চেয়ে অভিজিৎ রায়ের বাবা এখন ক্লান্ত। ছেলের হত্যাকাণ্ডের তদন্তে অগ্রগতি কতটুকু হয়েছে সেটি জানতে তিনি বারবার গিয়েছেন গোয়েন্দা অফিসে। কিন্তু বিচার নিয়ে আশাবাদী হওয়ার মতো কোনো উত্তর পাননি অজয় রায়।
avijit
অভিজিৎ রায় এবং অভিজিৎ রায়ের বাবা অধ্যাপক অজয় রায়।
প্রবীণ এই অধ্যাপক প্রশ্ন তোলেন, ‘সত্যিই কি আমি অভিজিৎ হত্যার বিচার পাবো? আমাদের দেশে যে বিচারহীনতার সংস্কৃতি গড়ে উঠছে, এটা বিপদজনক।’
অজয় রায় বলেন, তদন্তে দৃশ্যমান অগ্রগতি না হবার পেছনে দুটো কারণ থাকতে পারে। হয়তো তদন্তের বিষয়ে তদন্তকারীদের অনীহা রয়েছে, নতুবা তদন্ত কাজে তারা অদক্ষ।
এদিকে এক বছর পার হলেও এখনো তদন্ত শেষ করতে পারেনি পুলিশ। তদন্তে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই সহায়তা করছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশের কর্মকর্তারা। অভিজিৎ হত্যাকাণ্ডের বিচারের বিষয়ে সরকারের দিক থেকেও আশার বানী শোনানো হচ্ছে।
তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলছেন, অভিজিৎসহ অন্যান্য ব্লগার, প্রকাশক হত্যাকারীদের বিচারের বিষয়ে সরকার বদ্ধপরিকর। কিন্তু এতে ‘খানিকটা সময় লাগাছে’ বলে তিনি উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, ‘অভিজিৎ হত্যাকারীরা রেহাই পাবে না। কারণ এ ধরনের চোরাগোপ্তা হামলাকারীদের বিভিন্ন সময় সনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হয়েছে।’