Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:৩৫ ঢাকা, শুক্রবার  ১৬ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, ছবিঃ সংগৃহীত

‘বাবাকে কর ফাঁকিতে সহায়তা করেছিলেন ট্রাম্প’

নব্বইয়ের দশকে কর ফাঁকিসহ জালিয়াতির ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠেছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার নিউ ইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিজের ভাই-বোনদের সঙ্গে মিলে তাদের বাবা ফ্রেডি ট্রাম্পকে কর ফাঁকি দিতে সহায়তা করেছিলেন ট্রাম্প। প্রতিবেদনটি প্রকাশের পর ট্রাম্পের বাবার কর ইতিহাস ও তার সঙ্গে ট্রাম্পের সংশ্লিষ্টতা খতিয়ে দেখছে নিউ ইয়র্ক কর্তৃপক্ষ।

দুইশ’র অধিক কর নথির বরাত দিয়ে তাদের প্রতিবেদনে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে কর ফাঁকিতে সংশ্লিষ্টতার দাবি করেছে নিউ ইয়র্ক টাইমস। হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র সারাহ স্যান্ডার্স প্রতিবেদনের প্রতিক্রিয়ায় জানিয়েছেন, এটা প্রেসিডেন্টের ওপর একটি ‘বিভ্রান্তিকর হামলা’।

এদিকে, নিউ ইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের শুল্ক বিভাগ জানিয়েছে, তারা কর ফাঁকির অভিযোগটি খতিয়ে দেখছে। প্রতিবেদনটি নিয়ে এখনো ট্রাম্প কোন মন্তব্য করেননি। তবে তার আইনজীবী চার্লস হার্ডার বলেছেন, কেউ কো কর ফাঁকি বা জালিয়াতি করেননি। দ্য টাইমস যে তথ্যের ওপর ভিত্তি করে এই মিথ্যা অভিযোগ করেছে, সেসব তথ্য ভুল। প্রেসিডেন্টের কর ফাঁকির সঙ্গে কোন প্রকার দৃশ্যমান

নির্বাচনী প্রচারণার সময় ট্রাম্প একাধিকবার দাবি করেছেন যে, তিনি নিজ চেষ্টায় একজন রিয়েল-এস্টেট মোঘল হয়ে ওঠেছেন। এজন্য তিনি তার বাবা ফ্রেড ট্রাম্পের কাছ থেকে খুবই অল্প পরিমাণ ঋণ নিয়েছিলেন।

কিন্তু নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ট্রাম্পের অর্থের বেশিরভাগই তাকে তার বাবা দিয়েছেন। কেননা, তিনি তার বাবাকে কর ফাঁকি দিতে সাহায্য করেছিলেন। অভিযোগ ওঠেছে, কর ফাঁকি দেওয়ার জন্য একটি ভুয়া কোম্পানিও খুলেছিলেন ট্রাম্প ও তার ভাইরা। সে কোম্পানিতে তাদের পিতামাতার কাছ থেকে উপহারের নামে পাওয়া লাখ লাখ ডলার লুকিয়েছিলেন।

দুইশ’র অধিক গোপন কর বিষয়ক ও আর্থিক নথির বরাত দিয়ে দ্য টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সব মিলিয়ে নিজের বাবার কাছ থেকে ৪১ কোটি ৩০ লাখ ডলার পেয়েছিলেন ট্রাম্প। -বিবিসি ও আল জাজিরা