Press "Enter" to skip to content

বাংলাদেশে ২ কোটি মানুষ পর্যাপ্ত খাদ্য পায় না

বাংলাদেশে প্রায় দুই কোটির বেশি মানুষ ভালোভাবে খেতে পায় না। ফলে এ দেশের প্রতি ছয়জনের একজন পুষ্টিহীনতায় ভুগছে। তাদের ভাগ্যে জুটছে না পর্যাপ্ত খাদ্য। গত এক দশকে বাংলাদেশে অপুষ্টিতে ভোগা মানুষের সংখ্যা বেড়েছে অন্তত ১০ লাখ। আর এই অপুষ্টির কারণ প্রয়োজনীয় খাদ্যের অভাব। ২০০৪ সালে বাংলাদেশে অপুষ্টিতে ভোগা মানুষের সংখ্যা ছিল ২ কোটি ৩০ লাখ। ২০১৮ সালে তা এসে দাঁড়ায় ২ কোটি ৪০ লাখে।

২০১৯ সালে বিশ্বে ‘খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টিবিষয়ক’ এক নতুন প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে। জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি বিষয়ক সংস্থা এফএও, কৃষি উন্নয়নে আন্তর্জাতিক তহবিল, শিশু তহবিল, বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা যৌথভাবে এই প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৮ সালে সারাবিশ্বে ৮২ কোটির বেশি মানুষ তথা বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ১১ শতাংশ মানুষ পুষ্টিহীনতায় ভোগে। এর মধ্যে এশিয়াতে রয়েছে ৫১ কোটির বেশি এবং আফ্রিকায় ২৫ কোটির বেশি মানুষ।

বিশেষজ্ঞদের মত হলো: খাদ্যের সহজলভ্যতার মানে এই নয় যে সবাই খাবার পাচ্ছেন। একই সময়ে খাদ্যের উত্পাদন বৃদ্ধি পেলেও জলবায়ু পরিবর্তন ও নগরায়ণসহ বিভিন্ন রকমের ঝুঁকি রয়েছে। প্রতিবেদনে মূলত পুষ্টিহীনতার পরিমাপকে মানুষের খাদ্যের অভাবের কথা বলা হয়েছে।

শেয়ার অপশন: