ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৮:৪৯ ঢাকা, বুধবার  ১৭ই জানুয়ারি ২০১৮ ইং

বাংলাদেশে মোবাইল ব্যবহারে সারচার্জ

দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে মোবাইল ফোনের ব্যবহারের ওপর ১ শতাংশ হারে সারচার্জ আরোপ করে জাতীয় সংসদে উন্নয়ন সারচার্জ ও লেভী (আরোপ ও আদায়) বিল-২০১৫ উত্থাপন করা হয়েছে।
মঙ্গলবার অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বিলটি উত্থাপন করেন। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ১ মাসের মধ্যে রিপোর্ট প্রদানের জন্য বিলটি অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে প্রেরণ করা হয়।
বিলে বলা হয়, সরকার গেজেট বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আরোপিত শর্তে ও নির্ধারিত মেয়াদে বিলে উল্লেখিত ধারা ৩ এর অধীন আরোপিত উন্নয়ন সারচার্জ ও লেভী আদায় করতে পারবে। সরকার সময় সময় গেজেট বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে এ তফসিল সংশোধন করতে পারবে।
বিলের প্রথম তফসিলের কলাম ২ এ বর্ণিত বিষয়ের ওপর কলাম ৩ এ উল্লেখিত হারে উন্নয়ন সারচার্জ আরোপের বিধানের প্রস্তাব করা হয়। এক্ষেত্রে মোবাইল অপারেটর কর্তৃক সিম বা রিম কার্ড ব্যবহারের মাধ্যমে প্রদত্ত সেবার বিনিময়ে প্রাপ্ত সমুদয় অর্থ বা আয়ের ওপর ১ শতাংশ হারে সারচার্জ আরোপের প্রস্তাব করা হয়। বিলের ২য় তফসিলে বর্ণিত বিষয়ের ওপর কলাম ৩ এ উল্লেখিত হারে লেভী আরোপের বিধানের প্রস্তাব করা হয়।
এ সম্পর্কে অর্থমন্ত্রী বলেন, ২০১৪-১৫ সালের বাজেট অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী জাতীয় সংসদে মোবাইল ফোন ব্যবহারের ক্ষেত্রে সার চার্জ আরোপের কথা বলেছিলেন। এ থেকে যে টাকা পাওয়া যাবে তা শিক্ষা খাতে ব্যয় করা হবে বলে অভিমত দিয়েছিলেন।
বৈদেশিক অনুদান রেগুলেশন বিল: জাতীয় সংসদে বৈদেশিক অনুদান (স্বেচ্ছাসেবামূলক কার্যক্রম) রেগুলেশন বিল-২০১৫ উত্থাপন করা হয়েছে। সংসদ কার্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী উত্থাপন করেন।
বিলে বৈদেশিক অনুদান গ্রহণ করে স্বেচ্ছাসেবামূলক কার্যক্রম পরিচালনা, নিবন্ধন ও নিবন্ধন নবায়ন, বৈদেশিক অনুদান গ্রহণ নিষিদ্ধ, প্রকল্প অনুমোদন, এনজিও থেকে সাহায্য প্রদান, বিদেশী বিশেষজ্ঞ, উপদেষ্টা বা কর্মকর্তা নিয়োগ ও বিদেশ ভ্রমণ, বৈদেশিক অনুদানের হিসাব সংরক্ষণ, পরিদর্শন, পরিবীক্ষণ ও পর্যবেক্ষণের ক্ষমতা, নিরীক্ষা ও হিসাব, গঠনতন্ত্র ও পরিচালনা পর্ষদ, প্রতিবেদন ও ঘোষণা, অপরাধের শাস্তি, নিবন্ধন বাতিল বা কার্যক্রম স্থগিত, আপিলসহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিধান করার প্রস্তাব করা হয়েছে।
পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ১ মাসের মধ্যে রিপোর্ট প্রদানের জন্য বিলটি আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে প্রেরণ করা হয়।
এছাড়া বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ইয়াফেস ওসমানের পক্ষে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র অধ্যাদেশ রহিত করার প্রস্তাব করে পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র বিল ২০১৫ উত্থাপন করেন। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে রিপোর্ট প্রদানের জন্য বিলটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে প্রেরণ করা হয়।
মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক (সংশোধন) বিল: জাতীয় সংসদে মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক (সংশোধন) বিল-২০১৫ এর ওপর অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির রিপোর্ট উপস্থাপন করা হয়েছে। কমিটির সভাপতি ড. আবদুর রাজ্জাক রিপোর্টটি উপস্থাপন করেন। রিপোর্টে বিলটি উত্থাপিত আকারে পাসের সুপারিশ করা হয়। গত ৮ জুলাই অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বিলটি উত্থাপন করেন।
বিলে বিদ্যমান আইনের ২ ধারার দফা ৪৮ দফায় উল্লেখিত ২৪ (চব্বিশ) সংশোধন করে ৩০ (ত্রিশ) সংখ্যা বন্ধনী ও শব্দ প্রতিস্থাপনের প্রস্তাব করা হয়।