বোয়িং ৭৩৭ বিমান
বোয়িং ৭৩৭ বিমান, সংগৃহীত ছবি

বাংলাদেশে বোয়িং-৭৩৭ বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা

গত বছরের অক্টোবরে লায়ন এয়ার ও রোববার ইথিওপিয়ান এয়ারলাইনসের বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স-৮ বিমান দুর্ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ না হওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশের কোনো এয়ারলাইন্সকে বোয়িংয়ের এই মডেলের বিমান কেনা বা লিজের অনুমতি দেবে না বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। বোয়িংয়ের অত্যাধুনিক এই মডেলের বিমানের উপর নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বেবিচক পরিচালক (ফ্লাইট সেফটি অ্যান্ড রেগুলেশন) উইং কমান্ডার চৌধুরী এম জিয়াউল কবির।

তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের আগ পর্যন্ত দেশের কোনো বিমানবন্দরে কোনো দেশি এয়ারলাইন্স বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স-৮ বিমানটি অবতরণ ও উড্ডয়নের অনুমতি পাবে না। এ বিষয়ে উইং কমান্ডার চৌধুরী এম জিয়াউল কবির বলেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে বোয়িং-৭৩৭ ম্যাক্স-৮ বিমানের দুইটি দুর্ঘটনার বিষয় নজরে রেখেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে আকাশসীমায় এই মডেলের বিমানের নিষিদ্ধের বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। বিধ্বস্ত এয়ারক্রাফট দুইটির তদন্ত শেষে বেবিচক এ বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে’।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং ও নেদারল্যান্ডসভিত্তিক আন্তর্জাতিক এয়ারক্রাফট লিজিং কোম্পানি এয়ারক্যাপের যৌথ উদ্যোগে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স-৮ বিমানটির সরবরাহের কথা ছিল। আগামী বছরের মধ্যে বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় একটি বেসরকারি বিমান পরিবহন প্রতিষ্ঠানের এই মডেলের বিমান নিজেদের বহরে যুক্ত করার কথা থাকলেও বেবিচকের নির্দেশে তা স্থগিত রয়েছে।

পর পর দুইটি দুর্ঘটনার পর যুক্তরাষ্ট্রের বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িংয়ের অত্যাধুনিক মডেল ৭৩৭ ম্যাক্স-৮ বিমানকে ইতিমধ্যে ভারত, সিঙ্গাপুর, চীন, ইন্দোনেশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, মঙ্গোলিয়া ও অস্ট্রেলিয়া গ্রাউন্ডেড করেছে। অর্থাৎ পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এই মডেলের বিমানের ব্যবহার বন্ধ রেখেছে দেশগুলো। ইথিওপিয়ান এয়ারলাইনসসহ ব্রিটিশ কেইম্যান এয়ারওয়েজ, সাউথ আফ্রিকার কোমএয়ার, ব্রাজিলের গোল এয়ারলাইনস, মেক্সিকোর অ্যারোমেক্সিকো ও আর্জেন্টিনার অ্যারোলিনেয়াস আর্জেন্টিনাস, নরওয়েজিয়ান এয়ার, টুই এয়ারওয়েজ, শেনজেন এয়ারলাইনস, এয়ার চায়না, চায়না ইস্টার্ন এয়ারলাইনস, চায়না সাউদার্ন, হাইনান এয়ারলাইনস, সাংহাই এয়ারলাইনস, জিংমেন এয়ারলাইনস, শ্যানডং এয়ারলাইনস, ওকে এয়ারওয়েজ, কুনমিং এয়ারলাইনস, গরুড় ইন্দোনেশিয়া, লায়ন এয়ার ও সিল্ক এয়ার তাদের বহরের বোয়িং-৭৩৭ ম্যাক্স-৮ বিমানের সব ফ্লাইট স্থগিত করেছে। এছাড়াও ইতিমধ্যে অসংখ্য এয়ারলাইনস বোয়িং-৭৩৭ ম্যাক্স-৮ সিরিজের দেওয়া অর্ডার বাতিল করতে শুরু করেছে।