ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ২:০২ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

বাংলাদেশে কোথাও নিরাপত্তাজনিত কোনো সমস্যা দেখতে পাইনি : ব্রিটিশ এমপি

সফররত ব্রিটিশ সংসদীয় প্রতিনিধি দল বাংলাদেশে এ মুহূর্তে সুষ্ঠু, সুন্দর ও নিরাপদ পরিবেশ বিরাজ করছে বলে জানিয়েছে। প্রতিনিধি দলের প্রধান ও ব্রিটিশ পার্লামেন্টে বাংলাদেশসংক্রান্ত সর্বদলীয় সংসদীয় দলের চেয়ারপারসন অ্যানমিন এমপি বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের বলেন, আমাদের অত্যন্ত চমৎকার সফর হয়েছে। ঢাকা ও সিলেটের বিভিন্ন স্থানে ঘুরেছি। কোথাও নিরাপত্তাজনিত কোনো সমস্যা দেখতে পাইনি। নিরাপত্তার কোনো অভাব বোধ করেনি।
এক সপ্তাহ সফর শেষে বৃহস্পতিবার রাতে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় সরকারের উচ্চ পর্যায়ের নীতিনির্ধারকদের সঙ্গে বৈঠকেও মিলিত হয় দলটি।

বৈঠকে সরকারের নীতি-নির্ধারকদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন সিকদার, সাবেক আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরু, ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্র সচিব রিয়ার এডমিরাল (অব.) খুরশেদ আলম, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (দ্বিপক্ষীয়) মিজানুর রহমান, সাবেক রাষ্ট্রদূত মো. জমিরসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে ব্রিটিশ প্রতিনিধি দলে অ্যানমিন এমপি ছাড়াও অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- বব ব্ল্যাকম্যান, পল স্কালি, ডেবিট মেকিন্টোস এমপি প্রমুখ।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন অ্যানমিন এমপি। তিনি বলেন, আমি ষষ্ঠবারের মতো বাংলাদেশ সফর করছি। এবারের সফরে আমরা ঢাকা ও সিলেটের বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রমে অংশ নিয়েছি। এর মধ্যে পথশিশুদের নিয়ে ব্র্যাকের প্রকল্প এবং টাসকোর সাহায্যপুষ্ট বিভিন্ন প্রকল্প প্রত্যক্ষ করেছি। এসব দেখে আমরা অভিভূত। এককথায় চমৎকার সফর হয়েছে।

সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেন, নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট দলের সফর স্থগিত করা হয়েছে, জঙ্গি হামলার আশংকায় ব্রিটিশ নাগরিকদের জন্যে সতর্কবার্তা জারি করা ছাড়াও ব্রিটিশ প্রতিমন্ত্রীর আসন্ন সফর স্থগিত করা হয়েছে। আসলে প্রকৃত নিরাপত্তা ব্যবস্থা আপনারা কেমন দেখলেন? জবাবে অ্যানমিন বলেন, আমরা নিরাপত্তার কোনো সমস্যা দেখিনি। আমরা চমৎকার পরিবেশ দেখতে পেয়েছি। আমরা হোটেলে ছিলাম। ঢাকা আমাদের প্রতিনিধি দলের অনেক সদস্য বিভিন্ন রেস্তোরাঁয় খাবার খেয়েছে। এমনকি বিভিন্ন শপিং মল ঘুরেছি এবং কেনাকাটা করেছি। কোথাও কোনো সমস্যা হয়নি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের জনগণের আপ্যায়নেও আমরা অভিভূত। বাংলাদেশ ও ব্রিটেনের মধ্যে চমৎকার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বিরাজ করছে। বাংলাদেশের মানুষ খুবই বন্ধুসুলভ। তিনি আরও বলেন, আমরা বাংলাদেশের জনগণের বন্ধুত্ব ও আপ্যায়নের বার্তা বয়ে নিয়ে যাচ্ছি।

বৈঠক শেষে এইচটি ইমাম বলেন, ব্রিটিশ পার্লামেন্টের এ প্রতিনিধি দলটি সরকারি কোনো সফরে বাংলাদেশে আসেনি। সামাজিক কর্মকাণ্ডে যোগ দিতে এসেছিলেন। তারা নিরাপত্তার কোনো অভাব বোধ করেননি।
জানা গেছে, ২৫ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশে আসে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের এ প্রতিনিধি দলটি। এক সপ্তাহ সফর শেষে আজ তারা ব্রিটেনের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবেন।