ব্রেকিং নিউজ

রাত ৩:৪৫ ঢাকা, সোমবার  ২৪শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, ফাইল ফটো

‘বাংলাদেশে আইএস নামের কোনো জঙ্গি সংগঠন নেই’- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বাংলাদেশে আইএস  নামের কোনো জঙ্গি সংগঠন নেই বলে আবারো দাবি করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

তিনি বলেন, বিভিন্ন জঙ্গি গ্রুপ আইএসের নামে দেশ ও ইসলামবিরোধী সন্ত্রাস চালাচ্ছে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় সাভার সরকারি কলেজ মাঠে জঙ্গিবিরোধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সাভার উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগের জঙ্গি বিরোধী কমিটি এ সমাবেশের আয়োজন করে।

মন্ত্রী বলেন, দেশের এ মাথা থেকে ও মাথা পর্যন্ত আমরা খুঁজেছি আইএসের কোনো অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, রাজধানীর গুলশান ও শোলাকিয়াসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যে জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটেছে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সাহসিকতার সঙ্গে তা মোকাবেলা করেছে। তারা শক্ত হাতে জঙ্গিদের নির্মূল করার চেষ্টা চালাচ্ছে।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, বাংলাদেশে কোনো আইএস  নাই। যারা এসব ঘটনা ঘটিয়েছে তারা এ দেশীয় সন্ত্রাসী ও ইসলাম বিরোধী। তারা কখনও জেএমবি, কখনও হুজি, কখনও আনসার উল্লাহ বাংলাটিম নামে সন্ত্রাস ও হত্যাকাণ্ড চালাচ্ছে।

তিনি বলেন, তারা নিজেরা বিভিন্ন ব্যানার নিয়ে ছবি তুলে নিজেদের আইএস  জঙ্গি বলেও প্রচার করছে। এদেরকে কঠোর হাতে দমন করার উদ্যোগ নিয়েছে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার।

সাভার পৌর মেয়র হাজী আবদুল গণির সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম।

অন্যান্যের মধ্যে ঢাকা ১৯ আসনের এমপি ডা.এনামুর রহমান, সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসিনা দৌলা,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম রাজীব, তেতুল ঝোড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফখরুল আলম সমরসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

রাজধানীর গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারি ও কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়াসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে জঙ্গি হামলার প্রতিবাদে এ জঙ্গি বিরোধী সমাবেশ করা হয়। সমাবেশে সাভারের বিভিন্ন পর্যায়ের কয়েক হাজার লোকজন অংশ নেন।

এদিকে যে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সমাবেশের আশেপাশে বিপুল সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন ছিল।

উল্লেখ্য, গত ১ জুলাই রাজধানীর গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারিতে সন্ত্রাসী হামলায় ১৭ বিদেশী ও তিন বাংলাদেশী নাগরিক নিহত হন। জঙ্গিদের হামলায় দুজন পুলিশ কর্মকর্তাও নিহত হন।

এ ছাড়া ৭ জুলাই কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলায় দুই পুলিশ সদস্য ও এক গৃহবধু নিহত হন।